বুদ্ধিজীবী

শিক্ষার বাণিজ্যিকরণঃ অকস্মাৎ অর্থোদ্ধার!

মাসুদ রানা

কখনও একা ও কখনও বহুজন মিলে, কখনও ব্যক্তি ও কখনও সংগঠন থেকে প্রচুর লেখা হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে শিক্ষার বাণিজ্যিকরণ কিংবা বাণিজ্যিকীকরণের বিরুদ্ধে। কিন্তু কোথায়ও সংজ্ঞা নেই শিক্ষার বাণিজ্যিকরণের, যদিও উষ্মা আছে প্রচুর।

এই যখন পরিস্থিতি, তখন আমার আজকের লেখার শুরু হোক একটু নাটকীয়ভাবে। আমি বলতে চাইছি, নাটকের সংলাপাকারে লিখিত হোক আজকের লেখা। তাতে একঘেয়েমি কাটবে। ...»

ফরহাদ মজহার ও সলিমুল্লাহ খানঃ কুযুক্তির উপাখ্যান

মাসুদ রানা

শিরোনামে উল্লেখিত দুই বুদ্ধিজীবী সম্পর্কে জ্ঞাত আছি দীর্ঘকাল, যদিও তাঁদের বুদ্ধিবচন সাক্ষাতে শ্রবণের সৌভাগ্য অর্জিত হয়নি কোনোদিন আমার। সম্প্রতি লণ্ডন থেকে আরিফ রহমান এবং ঢাকা থেকে পিনাকী ভট্টাচার্যের বদান্যতায় ইণ্টারনেটে ফরহাদ মজহার ও সলিমুল্লাহ খানের চলচ্চিত্রিক মুখদর্শন ও বাণী শ্রবণে সক্ষম হলাম। ...»

তুমি নয় আমি জানিঃ তুমি বোকা আমি জ্ঞানী

মাসুদ রানা

‘তুমি নয়, আমি জানি; তুমি বোকা, আমি জ্ঞানী’ ভাবটি একটি শিশুসুলভ অপরিপক্কতা, যা বুদ্ধিজীবীদের কাছে আমরা আশা করি না। একজন বুদ্ধিজীবীর ক্ষেত্রে এটি শুধু দুর্বিনীত মনোবৃত্তিই নয়, বাস্তব বিবেচনায় টেকসইও নয়। কারণ, জ্ঞান ও এর শাখা-প্রশাখা এতো বিস্তৃত ও বর্ধিষ্ণু - অর্থাৎ আমাদের ব্যক্তিগত জ্ঞান-সঞ্চয়ের তুলনায় বিশ্বের জ্ঞানভাণ্ডারের স্ফীতির হার অনেক অনেক বেশি - যে, ব্যক্তিগত জ্ঞানের গরিমা দেখানো একটি নিস্ফল চেষ্টা। ...»

বুদ্ধির ঢেঁকিঃ কোঁদলে যশ

মাসুদ রানা

ঢেঁকি ও কোঁদল
বাংলায় ‘বুদ্ধিজীবী’ কথাটা চিত্তাকর্ষক, কিন্তু ‘বুদ্ধির ঢেঁকি’ মোটেও নয়। বুদ্ধিজীবীদের আমরা খুব চিনি, কিন্তু বুদ্ধির ঢেঁকি চিনি কি? তবে, ঢেঁকি আমরা নিশ্চয় চিনি। গ্রাম বাংলার বড়ো গৃহস্থালীর ধানভানা-ঘরে প্রায়শঃ দুই নারীর প্রতিযোগী ও ছন্দোবদ্ধ পদাঘাতের তালে-তালে বিশ্রী আওয়াজ তুলতে-তুলতে ধান ভানে যে পদচালিত যুগল কাষ্ঠযন্ত্র দেখা যায়, তাদের প্রতিটিকে বলা হয় ঢেঁকি। ...»

‘বার্মিংহ্যামের বুদ্ধিজীবী’ বিষয়ক জটিলতা

মাসুদ রানা

পত্রিকার জুন ১৮-২৪ সংখ্যায় ‘‘কবি ‘তান্দুরী শেফ’ নজরুল’’ শিরোনামে আমি একটি মন্তব্য প্রতিবেদন লিখেছিলাম, যা প্রকাশিত হয়েছিলো বার্মিংহ্যামের ‘দেশপ্রেম বাংলাদেশ সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ’-এর সভায় কবি নজরুল ইসলাম সম্পর্কে উপস্থাপিত কিছু তথ্যে ভ্রান্তি নির্দেশ করে। ভ্রান্তিগুলোর মধ্যে ছিলো নজরুলকে ‘তান্দুরী শেফ’ মনে করা, ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সৈনিক’ হিসেবে জানা, ইত্যাদি। ...»

Syndicate content