অভিমত

সমতলের আদিবাসীদের জন্য পৃথক ভূমি কমিশন গঠন

অদিতি ফাল্গুনী

বাংলাদেশে আদিবাসী জনগণের ভূমি অধিকার বঞ্চণার ইতিহাসটি বেশ দীর্ঘই বলা যায়। দেশের সমতল অঞ্চলের আদিবাসী জনগণের জমি জোর-পূর্বক বেদখল সে-সংক্রান্ত নিপীড়নের মাত্রা পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের চেয়েও বেশি বলা যেতে পারে। সর্বশেষ গত ১২ই জুন উত্তর বাংলার নওগাঁতে প্রায় ৫৬টি সাঁওতাল পরিবারের জমি বসতবাটির উচ্ছেদের উদাহরণটি এ-প্রসঙ্গে টানা যেতে পারে। ...»

মুক্তিযুদ্ধে পার্বত্যাঞ্চলের জুম্ম জনগণ ও প্রাসঙ্গিক কিছু বিষয়

মঙ্গল কুমার চাকমা

১৯৬৬ সালে ছয়দফা দাবীতে সারাদেশের সাথে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলও আন্দোলিত হয়েছিলো। সে-সময় জুম্ম ছাত্র-যুব সমাজ এ-আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে। অসহযোগ আন্দোলনের অংশ হিসেবে দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মতো পার্বত্য চট্টগ্রামেও দোকানপাট রাস্তা-ঘাট অচল করে দিয়েছিলো পার্বত্য চট্টগ্রামের জুম্ম-বাঙ্গালী জনগণ সম্মিলিতভাবে। মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে অনেক জুম্ম ছাত্র-যুবক মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে এবং জুম্ম জনগণ মুক্তিবাহিনীকে সর্বাত্মকভাবে সহায়তা প্রদান করে। কিন্তু পরে আওয়ামী-লীগের কিছু উগ্র জাতীয়তাবাদী ও উগ্র সাম্প্রদায়িক নেতা ও আমলার ষ ...»

বাংলাদেশঃ স্বাধীনতা ও জাতীয় মুক্তির প্রশ্ন

তরিকুল হুদা

স্বাধীনতার আরও এক বছর পার হলো। বর্তমান সময়ে স্বাধীনতা ও জাতীয় মুক্তির প্রশ্ন কী হবে সেটাই আমার আলোচ্য বিষয়। এখানে খেয়াল রাখা দরকার আমি স্বাধীনতা নামক কোনো একাট্টা, ধ্রুব ও পরম কোনো ধারণার খরিদ্দার নই। আবার এ-রকম পরম ধারণার পিছনে যে-আবেগ কাজ করে, বাংলাভাষী জনগোষ্ঠীর সে-আইডেন্টিটিকেও ইতিহাসের মধ্যে ধরার কর্তব্য এতো বছর ধরে আমরা শেষ করতে পারিনি। স্থায়ী, ধ্রুব বা আবেগজাত ধারণা আকারে বাংলাদেশের স্বাধীনতার রাজনৈতিক সংগ্রাম ও যুদ্ধকে বিচার না করে এ-অঞ্চলের জনগণ এবং বিভিন্ন শ্রেণীর রাজনৈতিক বাসনা-জাত ঐতিহাসিক সক্রিয়তাকে জানা বা ...»

রাজাকার থেকে মুক্তিযোদ্ধাঃ মুক্তিযুদ্ধ-ভিত্তিক চলচ্চিত্রে মৌলভীর বিবর্তন

ফাহমিদুল হক

জাতিরাষ্ট্র যদি, বেনেডিক্ট এন্ডারসনের ভাষায় একটি কল্পিত সমাজ (ইমাজিনড কমিউনিটি) অথবা গায়ত্রী স্পিভাকের ভাষায় কৃত্রিম নির্মাণ (আর্টিফিশিয়াল কনস্ট্রাক্ট) হয়ে থাকে, তবে তার কল্পিত ঐক্য ও সংহতির জন্য লাগাতারভাবে একটি আদর্শ জাতীয়তার অবয়ব বা বৈশিষ্ট্য গড়ে তুলতে হয় এবং কিছু রেপ্রিজেন্টশন-পদ্ধতির (স্টুয়ার্ট হলের মতে) মাধ্যমে এ-নির্মাণের কাজটি করতে হয় সেই অবয়ব বা বৈশিষ্ট্যকে ধরে রাখার জন্যও। সংবাদপত্র, সাহিত্য বা শিক্ষা সেই রেপ্রিজেন্টশনের দায়িত্বটি বরাবর পালন করে ...»

আমরা কি চলতে ভুলে যাবো

মাসুম রেজা

নাট্য-সমালোচক মফিদুল হক দু-বাংলার থিয়েটার পত্রিকায় এক প্রবন্ধে ঢাকার মঞ্চ নাটকের উত্থান ও বিকাশের কথা লিখেছেন। তিনি দাবী করেছেন, স্বাধীনতার পর শিল্পের যে-শাখায় সবচেয়ে বেশি উৎকর্ষ সাধিত হয়েছে, তা হচ্ছে মঞ্চ- নাটক। চলচিচত্র নয়, সে-অর্থে সাহিত্য নয়, নাটক। মঞ্চ-নাটক। ১৯৭২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তঃহল নাট্য প্রতিযোগিতার ভিতর দিয়ে স্বাধীনতার-উত্তর বাংলাদেশের মঞ্চ নাটকের ভ্রুণের সঞ্চার হয়। সে-নাট্য-প্রতিযোগিতার একটি বড়ো শর্ত ছিলো, নাটকের পাণ্ডুলিপি হতে হবে দলের নিজস্ব নাট্যকারের লেখা। এ-বিশেষ একটি শর্তই সেদিন বদলে দিয়েছিলো প্রতিযোগিতার চেহারা। আমরা পেয়েছিলাম বেশ কয়েকজন নাট্যকার, নাট্য নির্দেশক ও অভিনেতা। সেলিম আল দীন, আল মনসুর, হাবিবুল হাসান, নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচচু, ম হামিদ, রাইসুল ইসলাম আসাদ, ...»

Syndicate content