• অভিযুক্ত প্রাক্তন আইএমএফ প্রধান বেইল-মুক্তঃ বাদিনী এবার ‘মিথ্যাবাদিনী’
    Strass-Kan-released-without-bail.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি, ১ জুলাই ২০১১, শুক্রবারঃ  হোটেল-পরিচারিকার উপর ধর্ষণ-চেষ্টা, যৌন নিপীড়ন ও যৌন-অসদাচরণের অভিযোগে অভিযুক্ত ও কারা-পরবর্তী-গৃহবন্দী প্রাক্তন আইএমএফ-প্রধান ডমিনিক স্ট্রস-কানকে শুক্রবার মার্কিন আদালত জামিন ছাড়া মুক্তি দিয়েছে। নিউ ইয়র্কের ক্রিমান্যাল কৌর্টের সরকারী আইনজীবীগণ এ-মামলার বাদিনীকে মিথ্যাবাদিনী উল্লেখ করে আদলতের কাছে একটি চিঠি জমা দেবার পর আদলাত স্ট্রস-কানকে জামিন-মুক্ত করে।

    সরকারী আইনজীবীগণ আদলতে জমা দেয়া চিঠির বৃত্তান্তে উল্লেখ করেন, তারা বিশ্বাস করেন যে আদি দেশ গিনি থেকে আসা এ-বাদিনী গণ-ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে মিথ্যা ভাষ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় লাভ করেন। আইনজীবীরা তাদের চিঠিতে জানান, বাদিনী স্বীকার করেছেন যে গণ-ধর্ষণের কাহিনীটি মিথ্যা ছিলো।

    চিঠিতে আরও বলা হয়, অভিযুক্ত স্টস-কানের ধর্ষণ-চেষ্টা ও অন্যান্য যৌনাচরণের পর বাদিনী যা-যা করেছেন বলে পুলিসের কাছে বয়ান করেছেন, তাতেও তিনি মিথ্যা বলেছেন।

    প্রাথমিকভাবে অভিযোগকারিনী তদন্তকারীদের কাছে বলেছেন যে, তিনি ঘটনার পর স্ট্রস-কানের স্যুইটেই লুকিয়ে ছিলেন এবং স্ট্রস-কান বেরিয়ে যাবার পর তিনি সাথে-সাথে বেরিয়ে এসে তার সুপারভাইজারের কাছে ঘটনাটি জানান। কিন্তু বাস্তবে তিনি প্রথম নিকটবর্তী একটি কামরা পরিষ্কার করেন এবং তার অভিযুক্ত ঘটনার কামরাটি পরিষ্কার করেন বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

    এদিকে, নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায়, কারাবন্দী এক মাদক ব্যবসায়ীর সাথে স্ট্রস-কানের বাদিনীর একটি টেলিফৌন-আলাপ পুলিস রেকর্ড করেছে। এ-আলাপে বাদিনী স্ট্রস-কানের বিরুদ্ধ অভিযোগের সূত্রে অর্থ প্রাপ্তির সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলেন। এছাড়াও, তদন্তে পাওয়া গিয়েছ, বাদিনীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে গত দু-বছরে ১০০,০০০ ডলার জমা হয়েছে, যার এর একটি অংশ এসেছে কারাবন্দী সেই মাদক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে।

    মার্কিন আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডমিনিক স্ট্রস-কানের বিরুদ্ধে মামলাটি এখন বাদিনীর অবিশ্বাসযোগ্যতার কারণে ধ্বসে পড়বে। তবে, কেউ-কেউ বলছেন, তাতে অবশ্যই স্ট্রস-কান সম্পূর্ণ রেহাই পাবেন না।

    স্ট্রস-কানের গ্রেফতার ও কারাবন্দী করার প্রথম পর্যায়ে বাদিনীর উচ্চশ্রেণীর আইনজীবী ছিলেন, তার এখন আর তার প্রতিনিধিত্ব করছেন না। কেনো করছেন না জানতে চাওয়া হলে আইনজীবীরা মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

    বাদিনীর বর্তমান আইনজীবী কেনিথ থম্পসন যথেষ্ট অ-প্রথাগতভাবে আদলত ভবনের সামনে দাঁড়িয়ে বলেন, তার মক্কেল এখন সংবাদ মাধ্যমের সামনে এসে কথা বলতে চান। তিনি জানান, বাদিনীর কাছে তার ক্ষত-বিক্ষত যৌনাঙ্গের ছবি আছে, আঘাতের ডাক্তারী প্রামাণ আছে এবং আক্রমণকারীর বীর্যপাতেরও ছবি আছে, যা তিনি দেখাতে চান।

    আইনজীবী থম্পসন অনুপুঙ্খ বর্ণনা দিয়ে বলেন, ‘তিনি (স্টস-কান) তার এতো জোরে তার (বাদিনীর) যোনি খামচে ধরেছিলেন যে, তিনি জখম হয়েছেন।’ তিনি বলেন, ‘তিনি আপনাদেরকে বলবেন ডমিনিক স্ট্রস-কান তার সাথে কী করেছেন।

    সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে থম্পসন বলেন, বাদিনীর বিরুদ্ধে অবাক-করা তথ্য প্রকাশ যা-ই হয়ে থাকুক না কেনো - ঘটনার পর তার আচরণ, কারাবন্দী মাদক ব্যবসায়ীর সাথে সম্পর্ক - স্ট্রস-কানের বিরুদ্ধ অভিযোগ অপরিবর্তিত থাকছে এবং ‘তিনি দাঁড়াবেন’।

    ইউকেবেঙ্গলি শুরু থেকে স্ট্রস-কান কাণ্ডের বিকাশ পর্যবেক্ষণ করে ধারণা করছে, গ্রীসের আর্থিক সঙ্কট বিষয়ে ইউরোপীয় কোনো-কোনো দেশের সাথে কোনো-কোনো দেশ ও আইএমএফের যে মতবিরোধ রয়েছে তার সাথে ডমিনিক স্ট্রস-কান কাণ্ডের একটা সম্পর্ক থাকতে পারে।

    লক্ষ্য করার বিষয়, গ্রীসের জন্য আরও একটি বিশাল অঙ্কের বেইল-আউট দরকার কি-না এবং বেইল-আউট পেতে হলে তার পূর্বশর্ত বৃহৎ ব্যাংকগুলোর কাছে দেশটির সার্বভৌম ঋণ পরিশোধের জন্য দেশটির গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় সম্পদ আন্তর্জাতিক বাজের বিক্রির প্রশ্ন সিদ্ধান্ত নেবার সময় ঘনিয়ে আসার এক পর্যায় হঠাৎ করে আইএমএফের প্রধান ও ফরাসী সমাজতন্ত্রী ডমিনিক স্ট্রস-কান ধর্ষণ-চেষ্টার মতো সাংঘাতিক অভিযোগে গ্রেফতারির হোন ১৪ মে শনিবার।

    ১৬ মে সোমবার তার জামিনের আবেদন না-মঞ্জুর করে হাতকড়া দিয়ে ‘প্যারেইড’ করিয়ে অত্যন্ত অপমানজনক ভাবে নিউ ইয়র্কে কুখ্যাত জেলে পাঠানো হয়। এ-সময় আইএমএফ চলবে কীভাবে এ প্রশ্ন সামনে আসে। ১৮ মে তারিখ বুধবার স্ট্রস-কান আইএমএফ থেকে পদত্যাগ করলে বৃহস্পতিবারেই তাকে জামিন মঞ্জুর করা হবে বলে সংবাদ প্রকাশিত হয় এবং বাস্তবেও তা হয়।

    ২৯ জুন বুধবার রাস্তায় আন্দোলন সত্ত্বেও গ্রীসের পার্লামেন্ট গ্রীসের ঋণের জন্য জাতীয় সম্পদ আন্তর্জাতিক বিক্রির সিদ্ধান্ত এবং ৩০ জুন বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের আইন পাস হবার পরদিন শুক্রবারই ডমিনিক স্ট্রস-কানের বাদিনী মিথ্যাবাদিনী বিবেচনায় মামলার গুরুত্বকে হালকা করে দিয়ে আইএমএফের প্রাক্তন প্রধানকে এবার বেইল থকেও মুক্ত করে দেয়া হলো।

    স্ট্রস-কানের পক্ষে লড়িয়ে নিউ ইয়র্কের গুরুত্বপূর্ণ আইনজীবী বেঞ্জামিন ব্রাফম্যান বলেন, ‘পরবর্তী পদক্ষেপ হলো মামলার পরিপূর্ণ বাতিলীকরণ।’

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন