• আইএমএফ-এর কথা না-মানলে মায়ানমারে বিদেশীদের বিনিয়োগ না-করতে বললেন সু কিয়ী
    mayanmar_suu_kyi_geneva_speech_2.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৪ জুন ২০১২, বৃহস্পতিবারঃ  মায়ানমারের জনপ্রিয় বিরোধী-দলীয় নেত্রী অং সান সু কিয়ী বিদেশী সরকারগুলোকে অনুরোধ করেছেন, যেনো তাদের দেশের কোনো কোম্পানী তাঁর দেশের তেল-গ্যাস কোম্পানীর সাথে যৌথ-অংশীদারীত্বে বিনিয়োগ না করে। দু'সপ্তাহের ইউরোপ সফরের প্রথম দিনে আজ সুইৎজারল্যাণ্ডের জিনিভায় তিনি এ-অনুরোধ করেন।

    মায়ানমারের তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কোম্পানীটি বাংলাদেশের পেট্রোবাংলার মতো সরকার-নিয়ন্ত্রিত। তবে তফাৎ এই যে, বিদেশী কোনো সংস্থা মায়ানমারে তেল-গ্যাস সম্পর্কিত বিনিয়োগ করতে চাইলে, তা রাষ্ট্রীয় কোম্পানীর সাথে যৌথ-অংশীদারীত্বের ভিত্তিতে করতে হয়। অর্থাৎ, বিনিয়োগের লভ্যাংশে উভয় অংশীদারের অধিকার থাকে - বাংলাদেশের মতো লাভের ভাগ না দিয়ে কেবল নির্ধারিত হারে কর দেয়ার মধ্যেই সীমিত নয়।

    জিনিভায় আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার এ-সভায় সু কিয়ী বলেন, 'মায়ানমারে অর্থনৈতিক স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নেই'। তিনি আরও বলেন, মায়ানমারের উচিত স্বচ্ছতার আন্তর্জাতিক মান নিশ্চিত করতে আইএমএফ-নির্দেশিত 'কৌড অফ গূড প্র্যাক্টিস অন ফিস্ক্যাল ট্র্যান্সপারেন্সী' অনুসরণ করা। বিদেশী সরকারগুলোর প্রতি তাঁর অনুরোধ, 'আইএমএফের 'গূড প্র্যাক্টিস' শুরু করার আগে আপনাদের কোম্পানীগুলোকে মায়ানমারে বিনিয়োগে বিরত রেখে চাপ সৃষ্টি করতে পারেন'।

    এছাড়াও সু কিয়ী বলেন, তিনি মায়ানমারের জন্য একটি পরিপূর্ণ কার্যকর জ্বালানী-নীতিমালা দেখতে চান। মায়ানমারের কৃষি-ক্ষেত্রে বিদেশী বিনিয়োগের উপর জোর দেন তিনি। তবে তাঁর মতে, তা হতে হবে 'দায়ীত্বশীল'। সুইৎজারল্যাণ্ড থেকে সু কিয়ী যাবেন নরওয়েতে। সেখানে শান্তিতে নোবেল পুরষ্কার গ্রহণ উপলক্ষ্যে - যা তিনি পেয়েছিলেন ২১ বছরে আগে - সু কিয়ী আগামী শনিবার ভাষণ দিবেন।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন