• 'আমি এখনও ইউক্রেনের প্রেসিডেণ্ট' - ক্ষমতাচ্যুত ইয়ানুকোভিচের দাবি
    ukraine_viktor_yanukovych_press_conference.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, শুক্রবারঃ ইউক্রেনের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেণ্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচ 'প্রাণ রক্ষার্থে' রাশিয়ায় আশ্রয় নিয়েছে। সীমান্তের নিকটবর্তী দক্ষিণ রাশিয়ার শহর রোস্তভ-অন-ডনে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি নিজেকে এখনও 'বৈধ প্রেসিডেণ্ট' বলে দাবি করেছেন। খবর বিবিসি ও আরটির।

    নভেম্বর মাস থেকে চলে আসা সরকার-বিরোধী বিক্ষোভের নেতাদের সাথে গত শুক্রবার একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেন ইয়ানুকোভিচ। এ-চুক্তিতে সহ-স্বাক্ষর করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের কয়েকটি দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা। কিন্তু চুক্তি উপেক্ষা করে সরকার-বিরোধীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা সংসদ গত শনিবার তাঁকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করে। তখন থেকে নিরুদ্দেশে থাকা ইয়ানুকোভিচ আজই প্রথম জনসমক্ষে এলেন।

    সংবাদ-সম্মেলনের শুরুতে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করতে ইয়ানুকোভিচ নিজেকেই ইউক্রেনের একমাত্র বৈধ প্রেসিডেণ্ট বলে দাবি করেন। নিজের ও পরিবারের সদস্যদের প্রাণ রক্ষার্থে অনন্যোপায় হয়ে রাশিয়ার আশ্রয় নিয়েছেন জানিয়ে ইয়ানুকোভিচ বলেন, "ইউক্রেনের ক্ষমতা দখল করেছে জাতীয়তাবাদী ফ্যাসিস্ট-সম লোকেরা।" নিজ দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে তিনি 'সম্পূর্ণ আইনহীনতা', 'সন্ত্রাস' ও 'বিশৃঙ্খলা' বলে আখ্যায়িত করেন।

    কিয়েভের অন্তর্বর্তীকালীন কর্তৃপক্ষের ঘোষিত ২৫ মে'র নির্বাচনকে 'সম্পূর্ণ অবৈধ' বলে সাব্যস্ত করে ইয়ানুকোভিচ নিশ্চিত করেন, তিনি সে-নির্বাচনে অংশ নিবেন না। ইউক্রেনের 'ভবিষ্যতের জন্য' কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকারও করেন ক্ষমতাচ্যুত এ-রাজনীতিক। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার আন্তর্জাতিক নিশ্চয়তা পেলে যতো দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরে যাবেন বলে তিনি জানান।

    গত শুক্রবারের চুক্তিতে স্বাক্ষর করার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে ফ্রান্স, জার্মানী ও পোল্যাণ্ডেকে চুক্তির শর্ত পূরণ করতে আহবান জানান ইউয়ানুকোভিচ। তিনি বলেন, "[উদ্ভূত পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে] একমাত্র উপস্থিত উপায় হচ্ছে ফ্রান্স-জার্মানী-পোল্যাণ্ডের অংশগ্রহণে ইউক্রেনের প্রেসিডেণ্ট ও  বিরোধী নেতাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির সকল শর্ত পূরণ করা।" চুক্তির ভঙ্গ হওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য পশ্চিমা দেশের প্রতিনিধিদেরকে পূর্ণ দায়িত্ব নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন ইয়ানুকোভিচ।

    এদিকে, দক্ষিণ ইউক্রেনের স্বায়ত্বশাসিত রুশভাষী প্রদেশ ক্রাইমিয়ার দু'টি বিমান বন্দরে গতরাতে বন্দুকধারীরা প্রবেশ করেছিলো বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকধারীরা গতরাতে সিমফেরোপোল ও সেভাস্তোপোলের বিমানবন্দরে প্রবেশ করেছিলো, অনেক সংবাদ-মাধ্যম যাদেরকে রুশ সেনা বলে অনুমান করেছে। তবে, ক্রাইমিয়ায় অবস্থিত রাশিয়ার ব্ল্যাক সী ফ্লীট নৌঁ-ঘাটির একজন নাম অনুল্লেখিত মুখপাত্র এ-অনুমানকে ভিত্তিহীন বলে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন