• আরও একটি মার্কিন ড্রৌন আটকের দাবী ইরানেরঃ যুক্তরাষ্ট্রের অস্বীকার
    iran_captures_us_drone_scan_eagle.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৪ ডিসেম্বর ২০১২, মঙ্গলবারঃ ইরানের আকাশসীমা ভঙ্গ করে পারস্য উপসাগরের উপরে ভ্রমণরত অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি চালকবিহীন ড্রৌন আটক করার দাবী করেছে ইরান। গত বছরও ইরানের উপর নজরদারী করার সময় একটি মার্কিন ড্রৌন কব্জা করে দেশটি - যুক্তরাষ্ট্র প্রথমে সে-ঘটনা অস্বীকার করলেও পরে ফেরত চায়, যদিও ইরান তা দিতে প্রত্যাখ্যান করে। খবর রয়টার্স ও প্রেস টিভির।

    ইরানের ইসলামিক রেভ্যুলশনারী গার্ডস্‌ কর্পস্‌ (আইআরজিসি)-এর নেভী কমাণ্ডার রিয়ার এডমিরাল আলি ফাদাভি আজ ড্রৌন আটকের ঘোষণা দেন। সমগ্র পারস্য উপসাগর অঞ্চলে সক্রিয় সকল 'বিদেশি গতিবিধি' ইরানী নিরাপত্তা বাহিনীর পূর্ণ গোচরে রয়েছে বলেও দাবী করেন তিনি। আইআরজিসি 'ধৃত' ড্রৌনটির একটি ভিডিও-চিত্রও প্রকাশ করেছে।

    যুক্তরাষ্ট্রের বোয়িং-এর মালিকানাধীন ইনসিটু কৌম্পানির তৈরি স্ক্যানঈগল নামের এ-মডেলের ড্রৌনের প্রথম সামরিক ব্যবহার হয় ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রাসনের সময়। একটানা ২০ ঘন্টা উড়ে বেড়াতে সক্ষম এ-বাহনটি প্রায় ১০ফুট প্রসস্থ। আকারে ছোট হওয়ায় এটির উড্ডয়ণ ঘটাতে রানওয়ের প্রয়োজন হয় না, বড় জলযান থেকেও একে অভিযানে পাঠানো যায়।

    যুক্তরাষ্ট্র ইরানের এ-দাবী অস্বীকার করে জানিয়েছে, অতীতে তাদেরবহর থেকে এ-মডেলের ড্রৌন খোয়া গেলেও সম্প্রতি সে-রকম কিছু ঘটেনি। দেশটির নৌবাহিনীর এক বক্তব্যে জানায় যে, মধ্যপ্রাচ্যে ব্যবহৃত তাদের সকল ড্রৌন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

    উল্লেখ্যঃ গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের আরও উন্নত ও আকারে বৃহত্তর একটি গোয়েন্দা ড্রৌন (RQ-170 Sentinel stealth) আটকের ইরানী দাবী যুক্তরাষ্ট্র প্রথমে অস্বীকার করেছিল। পরে প্রেসিডেন্ট ওবামা ইরানের কাছে ড্রৌনটি ফেরত চান, যা ইরান সাথে-সাথে প্রত্যাখ্যান করে। পরে ড্রৌনটীর আদলে ক্ষুদ্র খেলনা সংস্করন তৈরি করে 'উপহার' হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠায় ইরান।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন