• ইরাকে 'আল-কায়েদার জেইল-ভাঙা' অভিযানঃ ৫০০ বন্দীর পলায়ন
    iraq_prison_break.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৩ জুলাই ২০১৩, মঙ্গলবারঃ গতকাল ইরাকে একই সময়ে দুটি জেইলে হামলা চালিয়ে প্রায় ৫০০ জিহাদীকে মুক্ত করেছে আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট সংগঠন। আজ এক বিবৃতিতে তারা এ-ঘটনার কৃতিত্ব দাবি করেছে। এতে ১০জন পুলিস ও ৪জন জিহাদী-সহ অন্ততঃ ১২০ ব্যক্তির প্রাণহানির খবর জানিয়েছে রয়টার্স। 

    বাগদাদের তাজি ও আবু গারায়িব বন্দীশালায় একই সাথে পরিচালিত আক্রমণে আত্মঘাতি বোমারু, রকেট, ও গাড়ি-বোমা ব্যবহার করার কথা জানিয়েছে সুন্নি জিহাদীদের সংগঠন ইসলামি স্টেইট অফ ইরাক। বছরখানেক আগে আল-কায়েদার ইরাক ও সিরিয়া শাখা একীভূত হয়ে সংগঠনটির জন্ম দেয়, যার প্রধান হচ্ছেন আবু বকর আল-বাগদাদী।

    গাড়ীতে বোমা নিয়ে আত্মঘাতি হামলাকারীরা জেইলের প্রবেশপথে আঘাত করে বিষ্ফোরণ ঘটায় এবং সহযোগীদের জন্য ভেতরে ঢুকার পথ করে দেয়। তাদের সাথীরা মর্টার ও গ্রেনেইড নিয়ে কারারক্ষীদের উপর হামলা চালায়। কয়েকজন আত্মঘাতি হামলাকারী শরীরে বোমা বেধে হেঁটে কারা-প্রাঙ্গণে প্রবেশ করে বিষ্ফোরণ ঘটায়। অন্যদিকে বাইরে অবস্থানরত জিহাদীরা বাড়তি নিরাপত্তা-রক্ষীদের প্রবেশে বাধা দেয়।

    একই সময়ে দু'টো স্থানে একই কমাণ্ডো কায়দায় পরিচালিত এ-জেইল-ভাঙা অভিযানের পরিকল্পনা ও নির্বাহে প্রাক্তন সামরিক অফিসাররা যুক্ত থাকতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

    ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইরাক দখলের মাধ্যমে প্রেসিডেণ্ট সাদ্দাম হোসেনকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকেই দেশটিতে শিয়া-সুন্নি সংঘাত বাড়তে থাকে। বর্তমান শিয়া নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরুদ্ধে প্রায় প্রতিদিনই চলছে সুন্নি জিহাদীদের হামলা। বেসরকারী সংস্থা 'ইরাক বডি কাউণ্ট' জানিয়েছে শুধুমাত্র চলতি জুলাই মাসেই প্রায় ৭০০ জন প্রাণ হারিয়েছেন এ-সব হামলায়।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন