• ইরাকে শিয়া অঞ্চলে সমন্বিত বোমা-হামলায় ৬০ নিহতঃ সুন্নি জিহাদীদের দিকে সন্দেহ
    iraq_wave_of_coordinated_bombing.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৯ জুলাই ২০১৩, সোমবারঃ  আজ ইরাকের শিয়া অধ্যুষিত এলাকায় একইসাথে ১৭টি সমন্বিত বোমা-হামলায় অন্ততঃ ৬০ ব্যক্তি নিহত হয়েছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে হতাহতের বেশিরভাগই শিয়া মতাবলম্বী। এখনও কোন সংগঠন এ-ঘটনার দায় স্বীকার না করলেও, ঘটনার প্রবণতা ও লক্ষ্য প্রত্যক্ষণে অনুমান করা হচ্ছে, সুন্নি জিহাদী কোনও সংগঠন এর সাথে জড়িত থাকতে পারে।

    রাজধানী বাগদাদের শিয়া-প্রধান এলাকা ও দেশের দক্ষিণাঞ্চলের শিয়া অধ্যুষিত শহরগুলোতে পরিচালিত এ-হামলা-অভিযানে আক্রান্ত হয়েছে ব্যস্ত শহর থেকে শুরু করে বিপণী-বিতান পর্যন্ত। এ-বছর এ-ধরণের আক্রমণে প্রায় ৪,০০০ মানুষের প্রাণ ঝরে পড়লো এর মধ্যে কেবলমাত্র এ-মাসেই প্রানহানি ঘটেছে প্রায় ৮১০ জন।

    প্রত্যক্ষদর্শীর জবানিতে রয়টার্স জানিয়েছে, বাগদাদের শিয়া-প্রধান সদ্‌র সিটি এলাকায় একটি ট্রাক এসে সড়কে অপেক্ষমান কিছু শ্রমিককে কাজে নেওয়ার ছল করে। তারা ট্রাকটিতে আরোহণ করার পর চালক গাড়ী থেকে নেমে গিয়ে গাড়ীর অভ্যন্তরে বিষ্ফোরণ ঘটায়। এতে প্রায় সকল শ্রমিক ঘটনাস্থলেই ছিন্ন-ভিন্ন হয়ে মারা যায়।

    রাজধানী থেকে প্রায় ১০০ মাইল দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত শিয়া-প্রধান কুত শহরে একটি বাসস্টপে দুটো গাড়ী বোমা বিষ্ফোরিত হয়ে অন্ততঃ ১০ জন নিহত হয়েছে।

    বাগদাদের ২০ মাইল দক্ষিণে মাহমুদিয়া শহরে অনুরূপ এক বিষ্ফোরণে আরও চারজন প্রাণ হারায়। তারও দক্ষিণে সামাওয়া শহরে আরও দুটি বিষ্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছে আরও দুজন। বাকি হামলাগুলো ঘটেছে প্রধানতঃ বাগদাদেরই বিভিন্ন এলাকায়।

    সাম্প্রতিক সময়ে ইরাকের সংখ্যালঘু সুন্নি মুসলমানরা শিয়া মতাবলম্বীদের উপর আক্রমণ জোরদার করেছে। গত সপ্তায় দুটো কারাগারে দুঃসাহসিক সমন্বিত আক্রমণ চালিয়ে প্রায় ৫শো সুন্নি বন্দীকে মুক্ত করে আল-কায়েদার সাথে সংশ্লিষ্ট একটি সুন্নি সংগঠন।

    ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইরাক দখলের পর প্রেসিডেণ্ট সাদ্দাম হোসেন ক্ষমতাচ্যূত ও পরে মৃত্যুদণ্ডিত হন। এরপর রাজনৈতিক শুন্যতায় দেশটির নিরাপত্তা পরিস্থিতিতে অরাজকতা নেমে আসে। পরবর্তীতে সংখ্যাগরিষ্ঠ শিয়া সম্প্রদায়ের নেতৃত্বে সরকার গঠিত হলেও এক সময়ের সমৃদ্ধ এ-দেশটিতে আর স্থিতিশীলতা ফিরে আসেনি। এমনকি শিয়া ও সুন্নি উভয় মুসলমান সম্প্রদায়ের কাছেই পবিত্র বিবেচিত রমজান মাসেও রক্তপাত বন্ধ হয়নি।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন