• ইরানীদের ভীত থাকতে বলছে ইসরায়েলঃ সেপ্টেম্বরে যুদ্ধ বাঁধবে মনে করে ইরান
    iran_map.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২ অগাস্ট ২০১২, বৃহস্পতিবারঃ  ইসরায়েলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রাক্তন প্রধান ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এফ্রাইম হালেভি ইরানী জনগণকে আগামী কয়েক সপ্তাহ ভীত থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন। অপরদিকে, ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খোমেনী 'কয়েক সপ্তাহর মধ্যেই' যুদ্ধ মোকাবেলা করার জন্য সামরিক বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন।

    ইসরায়েলের হালেভি বলেন, 'আমি যদি ইরানী হতাম তবে আগামী ১২ সপ্তাহ ভয়ের মধ্যে কাটাতাম' - জানাচ্ছে নিউ ইয়র্ক টাইমস। যদিও তিনি সরাসরি উল্লেখ করেননি, তবে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক বিশ্লেষকরা অনুমান করছেন যে, ইরানীদের ভয়ের উৎস হবে ইসরায়েলের দিক থেকে সামরিক আক্রমণ।

    এদিকে গত শুক্রবার মধ্যাহ্নিক প্রার্থনার পূর্বে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা তাঁর সামরিক উপদেষ্টা, দেশটির প্রতিরক্ষা-মন্ত্রী ও সামরিক বাহিনীর সকল শাখার প্রধানদের সাথে সভা করেছেন। ইসরায়েলী সামরিক ম্যাগাজিন দেবকাফাইল জানিয়েছে, এ-সভাকে খোমেনী (যুদ্ধের আগে) 'চূড়ান্ত বৈঠক' বলে অভিহিত করেছেন।

     

    ইরানের আণবিক প্রকল্প নিয়ে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য পশ্চিমা পরাশক্তিগুলো আপত্তি জানিয়ে আসছে; তাদের অনুমান ইরান আণবিক বোমা তৈরির চেষ্টা করছে। ইরান বরাবরই এ-অভিযোগ অস্বীকার করে বলছে, আণবিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশটি বিদ্যুৎ উৎপাদন ও চিকিৎসা-বিদ্যায় ব্যবহার করতে চায়।

    ইরান যুদ্ধের সামরিক প্রস্তুতির সাথে-সাথে আভ্যন্তরীণ জনসংখ্যা বাড়ানোর জন্য নতুন পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। গত দুই দশক ধরে কঠোরভাবে পরিবার-পরিকল্পনা কর্মসূচি পালনের ফলে আকারে পৃথিবীর ১৮তম দেশ ইরানের জনসংখ্যা এখন সাড়ে সাত কোটিতে সীমিত। জনসংখ্যা রোধে দেশটির সরকার ব্যাপক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছে, যার মধ্যে রয়েছে নিজস্ব বিরাট কারখানায় কণ্ডোম উৎপাদন, বিনামূল্যে পরিবার-পরিকল্পনা পরামর্শ, সেবা ও উপকরণ সরবরাহ, ব্যাপক প্রচারাভিযান ইত্যাদি। নতুন পরিকল্পনানুসারে পরিবার-পরিকল্পনার সকল সেবা তুলে নেয়া হবে এবং বেশি শিশু জন্মদানে উৎসাহ দিতে ১ হাজার কোটি ব্রিটিশ পাউণ্ড সমপরিমাণ অর্থ-বরাদ্দ করা হবে।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন