• এপ্রিল-মে-জুনে ইসরায়েল আক্রমণ করতে পারে ইরানঃ ধারণা মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর
    Isreal-to-attack-Iran.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১২, শুক্রবারঃ  প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদ-মাধ্যম ওয়াশিংটন পৌস্টে গতকাল প্রাকশিত একটি মন্তব্য প্রতিবেদনে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর বরাত দিয়ে জানানো হয় যে, ইসরায়েল এ-বছরের এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে যে-কোনো সময় আক্রমণ করবে ইরানের উপর।

    মন্তব্য প্রতিবেদনে কলামিস্ট ডেইভিড ইগনাটিয়াস লিখেন যে, মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লিওন প্যানেটা বিশ্বাস করেন যে ইসরায়েল আগামী এপ্রিল, মে কিংবা জুনের মধ্যেই ইরান আক্রমণ করবে। 

    প্রকাশিত মন্তব্য প্রতিবেদনের সাথে তিনি দ্বিমত পোষণ করেন কি না জানতে চাইলে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী প্যানেটার বলেন, ‘না, আমি শুধু মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি কী চিন্তা করি এবং আমার দৃষ্টিবোধ কী, তা আমার বিচেনায় এমন একটি জায়গা যা কেবলই আমার, অন্য কারও নয়’।

    প্যানেটার বরাত দিয়ে ইগনাটিয়াস জানান, ইসরায়েল মনে করে এ-সময়ের মধ্যে আক্রমণ না করলে ইরান একটি ‘সুরক্ষা অঞ্চলে’ প্রবেশ করে পারমাণবিক বোমা তৈরী করতে শুরু করবে। ইসরায়েলের আশঙ্কা, ইরান খুব দ্রুত পাহাড়ের নীচে গভীর পাতালে বোমা তৈরী জন্য যথেষ্ট পরিমাণ সমৃদ্ধিত ইউরেনিয়াম জমা করে ফেলবে। আর, তাই যদি হয়, তাহলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া আর কারও পক্ষে ইরানকে থামানো সম্ভব হবে না।

    ইসরায়েলী কর্তৃপক্ষের দাবী যে, ইরানের কাছে অন্ততঃ ৪টি পারমাণবিক বোমা বানাবার মতো প্রয়োজনীয় উপাদান রয়েছে। গতকাল তারা জানান, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র প্রকল্প যুক্তরাষ্ট্রের জন্যও হুমকি, কেননা প্রস্তুত হলে সে-ক্ষেপণাস্ত্র ৬,০০০ মাইল দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম হবে।

    প্যানেটার মতে, এ-পরিস্থিতিতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উপর ইসরায়লের ভাগ্য নির্ভরশীল করাতে চান না। আর সে-কারণেই ইসরায়েল উল্লেখিত সময়ের মধ্যে আক্রমণ করতে চায় তার অস্তিত্বের জন্য হুমকিস্বরূপ ইসলামিক ইরান।

    এদিকে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খোমেনী বলেছেন, ইসরায়েল নামের 'ক্যান্সারের' বিরুদ্ধে যে-জাতি বা গোষ্ঠীই লড়বে, ইরান তাদেরকে সহায়তা দেবে।

    ইরানের উপর সম্ভাব্য আক্রমণ সম্পর্কে খোমেনী বলেছন, 'আক্রান্ত হলে ইরান আরও শক্তিশালী হবে মাত্র'। যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, 'ইরানের কাছে ওবামার লেখা চিঠি প্রকাশ করে দিতে পারে তেহরান'। তবে, ওয়াইট হাউস এমন কোন চিঠির কথা অস্বীকার করেছে।

    উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের সন্দেহ যে, ইরান ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধির মাধ্যমে পারমাণবিক বোমা বানাতে চেষ্টা করছে, যদিও ইরান এ-সন্দেহ নাকচ করে দিয়ে দাবী করে আসছে যে, তাদের কর্মসূচি বিদ্যুৎ উৎপাদন ও চিকিৎসা-বিজ্ঞানে গবেষণার মতো শান্তিপূর্ণ লক্ষ্যে পরিচালিত হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন