• কায়রো গণহত্যায় ৬৩৮ প্রাণহানিঃ মিসরী সেনাবাহিনীকে অর্থ দেওয়া বন্ধ করবে না যুক্তরাষ্ট্র
    egypt_massacre_toll_rises_us_to_continue_funding_army..jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৫ অগাস্ট ২০১৩, বৃহস্পতিবারঃ  গতকাল মিসরী নিরাপত্তাবাহিনী কর্তৃক সঙ্ঘটিত মুসলিম ব্রাদারহূডের সমর্থকদের উপরে পরিচালিত গণহত্যায় প্রাণহানি বেড়ে ৬৩৮-এ দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তবে এ-সংখ্যায় কেবল যে-সকল মৃতদেহ সরকারী চিকিৎসক বা করতৃপক্ষের কাছে পৌঁছেছে তাদেরকেই অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে, ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে মোট মৃতের সংখ্যা হাজার অতিক্রম করতে পারে। মুসলিম ব্রাদারহূডের দাবি অন্ততঃ ৩,০০০ ব্যক্তি নিহত হয়েছে কায়রো গণহত্যায়।

    এদিকে মিসরে স্মরণকালের ভয়াবহতম এ-গণহত্যায় বিশ্বব্যাপী সমালোচনার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র আনুষ্ঠানিকভাবে নিন্দা জানিয়েছে। প্রেসিডেণ্ট বারাক ওবামা আজ বলেছেন, "[মিসরের] অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ও নিরাপত্তাকর্মীদের নেওয়া পদক্ষেপকে যুক্তরাষ্ট্র কঠোরভাবে নিন্দা জানায়"। ওবামা আরও জানান, মিসরের সেনাবাহিনীর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর আগামী মাসে অনুষ্ঠিতব্য পূর্বনির্ধারিত একটি যৌথ সামরিক মহড়া বাতিল করেছেন তিনি।

    তবে মিসরের সেনাবাহিনীকে মার্কিন কর্তৃপক্ষ যে বার্ষিক একশো ত্রিশ কোটি ডলার সাহায্য দেয়, তা বন্ধ করা প্রসঙ্গে কোনো কথা বলেননি। ব্রিটেইনের লেবার পার্টি যুক্তরাষ্ট্রকে অনুরোধ করেছে মিসরী সেনাবাহিনীকে অর্থ সাহায্য দেওয়া বন্ধ করতে। গত মাসে মুর্সিকে সেনাবাহিনী ক্ষমতাচ্যুত করার পর যুক্তরাষ্ট্র সে-ঘটনাকে ক্যুদেতা বলে চিহ্নিত করতেও অস্বীকার করে। উল্লেখ্য, ক্যুদেতায় ক্ষমতা হাতবদল হওয়া দেশে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার আইনতঃ সাহায্য দিতে পারে না।

    সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত অন্তর্বর্তীকালীন সরকার মিসরে এক মাসের জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছে; সন্ধ্যার পর থেকে জারি থাকছে কার্ফিউ। এর মধ্যেই আজ দিনে আলেক্সান্দ্রিয়ার মিছিল করেছে মুসলিম ব্রাদারহূডের কর্মী-সমর্থকরা। পুলিস ও ব্রাদারহূড বিরোধীদের সাথে সংঘর্ষে দেশব্যাপী আজও অন্ততঃ ৩ ব্যাক্তি প্রাণ হারিয়েছেন। উত্তেজিত মুর্সি-সমর্থকরা দেশটির সংখ্যালঘু কপ্টিক ক্রিশ্চিয়ানদেরকে সেনা-সমর্থক সাব্যস্ত করে তাদের উপাসনালয়ে হামলা চালিয়েছে বলেও খবর পাওয়া গিয়েছে।

    চলমান সহিংসতার মধ্যেও ব্রাদারহুড মুর্সিকে প্রেসিডেণ্ট হিসেবে পুনর্বহালের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সংকল্প ব্যক্ত করেছে। সংগঠনটির একজন মুখপাত্র ট্যুইটারে প্রকাশিত এক বার্তায় বলেন, "আমরা ফিরে ফিরে আসবো, আমাদের শহিদদের জন্য হলেও"। তিনি আরও বলেন, "আমরা নত হবো না"।

    অন্তর্বর্তী সরকারের প্রধানমন্ত্রী হাজেম বেব্লাওয়ি নিরাপত্তাকর্মীদের সমর্থনে বক্তব্য দিয়েছেন। রাষ্ট্রীয় টিভিতে প্রচারিক এক ভাষণে তিনি একে 'নিরাপত্তার খাতিরে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ' বলে বর্ণনা করেন। তাঁর সরকার 'জঙ্গী' বিক্ষোভকারীদেরকে দমাতে প্রয়োজনে গুলি করার নির্দেশও দিয়েছে নিরাপত্তারক্ষীদের।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন