• কূটনীতিক গ্রেফতার নিয়ে সমঝোতার প্রচেষ্টায় ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র
    india_devyani_khobragade.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৪ ডিসেম্বর ২০১৩, মঙ্গলবারঃ নিউ ইয়র্কে ভারতীয় নারী কূটনীতিকের গ্রেফতার নিয়ে ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শুরু হওয়া কূটনৈতিক সম্পর্কাবনতি মেরামতে তৎপর হয়েছে উভয় পক্ষ। গ্রেফতারিত দেবযানী খোবড়াগাড়েকে ভারতের মিশনের কর্মী হিসেবে গ্রহণ করেছে জাতিসঙ্ঘ, ফলে পূর্ণ কূটনৈতিক নিরাপত্তা পাবেন তিনি। দিল্লিও তার পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণের গতি ধীর করেছে।

    ১২ ডিসেম্বর ভারতীয় ডেপুটি কনসাল-জেনারেল দেবযানীকে তাঁর সন্তানের স্কুলের সামনে থেকে গ্রেফতার ও প্রকাশ্যে হাতকড়া পড়ানো এবং পরে নগ্ন করে তল্লাশি চালানো ও মাদকাসক্তদের সাথে একই কুঠুরীতে কয়েদ করে রাখা নিয়ে ব্যাপক গণ ও কর্তৃপক্ষীয় অসন্তোষ দেখা দেয় ভারতে। জবাবে দিল্লিস্থ মার্কিন দূতাবাসের অতিরিক্ত নিরাপত্তা কর্তন, বিশেষ পরিচয়পত্র প্রত্যার্পণের আদেশ, দূতাবাস কর্তৃক নিযুক্ত স্থানীয় কর্মীদের বেতনের হিসাব তলব-সহ নানাবিধ ব্যবস্থা নেয় ভারত।

    দেবযানীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, ভারত থেকে গৃহপরিচারিকা আনয়নের সময় ভিসার আবেদনে প্রদেয় বেতনের পরিমান মিথ্যা করে বেশি দেখানো হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে আনীত দ্বিতীয় অভিযোগটি হচ্ছে বর্তমানে সে-পরিচারিকাকে আইনে স্বীকৃত ন্যূনতম মজুরীর চেয়েও অনেক কম পারিশ্রমিক দেয়া হচ্ছে।

    জাতিসঙ্ঘে দেবযানীর বদলি নিশ্চিত হওয়ার সাথেই গতকাল যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তাঁকে বিচার-পূর্ব আদালতে হাজিরা থেকেও রেহাই দেয়া হবে। বিনিময়ে ভারত মার্কিন কূটনীতিকদের পরিচয়পত্র ফেরত দেয়ার সময়সীমা ৩ দিন বাড়িয়েছে। দৃশ্যতঃ উভয় দেশই পরিস্থিতির উন্নতিতে সচেষ্ট হয়েছে। দেবযানীর গ্রেফতার নিয়ে দুই দেশের মধ্যে সঙ্ঘটিত কূটনৈতিক অচলাবস্থা মীমাংসার দিকে এগুচ্ছে বলে মন্তব্য করছেন অনেক বিশ্লেষক।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন