• গাড়ী-বোমা হামলায় ইরানের পরমাণু-বিজ্ঞানী নিহতঃ ইসরায়েলের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ
    iran_scientist_killed_by_magnetic_bomb.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১১ জানুয়ারী ২০১২, বুধবারঃ  ইউরেনিয়ামের উন্নততর-শোধন প্রক্রিয়া শুরু করার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ইরানের একজন উচ্চপদস্থ পরমাণু-বিজ্ঞানী গাড়ী-বোমার বিষ্ফোরণে নিহত হয়েছেন। অজ্ঞাত দুই মোটরসাইকেল-আরোহী নাতাঞ্জ ইউরেনিয়াম শোধন-কেন্দ্রের ডেপুটি ডাইরেক্টর মোস্তফা আহমেদি রোসানের গাড়ীতে বোমা জুড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়, যার বিষ্ফোরণে তিনি প্রাণ হারান। খবর এপি ও রয়টার্সের।

    প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, দু'জন মোটরসাইকেল-আরোহী 'রসায়ন বিশেষজ্ঞ' মোস্তফার গাড়ীতে চৌম্বক-আকশির মাধ্যমে একটি বোমা জুড়ে দিয়ে দ্রুত সরে পড়ে। বিষ্ফোরণে গাড়ির অন্য একজন আরোহী আহত ও একজন পথচারী নিহত হয়েছেন। উল্লেখ্য, মোসফা আহমেদি রোসান তেহরানের একটি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবেও কাজ করতেন।

    ইরানী কর্তৃপক্ষ এ-ঘটনার জন্য ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে। ঘটনার পর-পর ইরানের সংসদে অনুষ্ঠিত এক অধিবেশনে দেশ-দু'টোর প্রতি নিন্দা জ্ঞাপন করা হয়েছে। ইসরায়েল বা যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

    গত দু'বছরে এ-নিয়ে ৪জন ইরানী পরমাণু-বিজ্ঞানী রহস্যজনকভাবে নিহত হলেন। ২০১০ এর নভেম্বরে প্রকাশ্য দিবালোকে একই ধরণের দু'টি পৃথক বোমা-হামলায় একজন বিজ্ঞানী নিহত ও অন্য একজন গুরুতর আহত হন। ইরান মনে করে, সে-ঘটনা দু'টোতেও ইসরায়েল সরাসরি জড়িত ছিলো, যদিও ইসরায়েল বরাবরই তা অস্বীকার করে আসছে।

    পর্যবেক্ষকগণ মনে করছেন, ইরানের পরমাণু প্রকল্প বন্ধ বা বাধাগ্রস্ত করতে ইসরায়েলের স্বীকৃত 'গোপন নাশকতা' কার্যক্রমের অংশ এ-বোমা-হামলা।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন