• গ্রীক নির্বাচনে ইইউ'র অদৃশ্য হস্তক্ষেপঃ স্বল্প ব্যবধানে ডানপন্থীদের জয়
    greek_elections_seats_june2012.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৮ জুন ২০১২ সোমবারঃ  গ্রীসের জাতীয় নির্বাচনে ডানপন্থী নিউ ডেমৌক্রেসী পার্টি ২.৭৭% ভৌটের ব্যবধানে বামপন্থী সিরিজা জোটকে হারিয়ে জয়লাভ করেছে। ৬ই মে'র নির্বাচনে কোনো একক দল সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। এমনকি একাধিক দল মিলে অংশীদারীত্বের সরকার গঠনেও দলগুলো ব্যর্থ হয়। তাই গতকাল দেশটিতে দ্বিতীয় দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। গত ৫-সপ্তাহ ধরে 'গ্রীক, ইউরোপীয় ও মহাদেশের বাইরের প্রধানতঃ জার্মান ও ইংরেজী ভাষার সংবাদ-মাধ্যমগুলো এ-নির্বাচনের ফলাফল নির্ধারণে বিশেষ ভূমিকা রাখে' বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

    গণনা শেষে দেখা যাচ্ছে যে, বামপন্থী সিরিজা পেয়েছে ২৬.৮৯% ভৌট আর বিজয়ী নিউ ডেমৌক্রেসী পেয়েছে ২৯.৬৬% ভৌট। সৌশালিস্ট পাসোক ১২.২৮% ভৌট পেয়ে রয়েছে তৃতীয় স্থানে। আসনের সংখ্যার বিচারে নিউ ডেমৌক্র্যাসী পেয়েছে ৭৯টি আর সিরিজা পেয়েছে ৭১টি আসন। গ্রীসের নিয়মানু্যায়ী, প্রথম হওয়া দলকে ৫০টি অতিরিক্ত আসন 'বৌনাস' হিসেবে দেয়া হয়। অর্থাৎ সংসদে নিউ ডেমৌক্রেসীর মোট আসন দাঁড়ালো ১২৯টিতে। কিন্তু এককভাবে সরকার গঠন করতে হলে ৩০০ আসনের এ-সংসদে অন্ততঃ ১৫১টি আসন পেতে হবে। ফলে দলটিকে কোয়ালিশন গঠনের জন্য অন্য দলের কাছে ধর্ণা দিতে হবে।

    বেতন-পেনশন-ভাতা কর্তনের মতো কর্মসূচির মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় ব্যয় সঙ্কোচনের শর্তে এ-বছরের শুরুতে ইউরোপীয় ও আন্তর্জাতিক ঋণদাতারা গ্রীসকে বেইল-আউটের নামে ঋণগ্রস্থ দেশটিকে আরও ঋণ নিতে বাধ্য করে। কয়েক বছর ধরে বিপর্যস্ত অর্থনীতর মধ্যে বসবাসকারী জনগণ এ-পরিস্থিতে বিক্ষোভ জানাতে পথে নেমে আসে। এ-অবস্থায় রেডিক্যাল লেফ্‌ট নামের বামপন্থী সংগঠনগুলোর জোট সিরিজা বেইল-আউটের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে ব্যপক জনপ্রিয়তা পায়, যা গতমাসের নির্বাচনে জোটটির দ্বিতীয় হওয়া থেকে প্রমাণিত হয়। দলটি ঘোষণা করে যে, সরকার গঠন করলে তারা বেইল আউটের শর্ত-পত্র 'ছিঁড়ে ফেলবে'।

    অপর পক্ষে গ্রীসের প্রধান দুই দল সৌশালিস্ট পাসোক ও রক্ষণশীল নিউ ডেমৌক্র্যাসী উভয়ে পারস্পরিক বৈরীতা ভুলে বেইল-আউটের পক্ষে অবস্থান নেয়। প্রথম নির্বাচনের পর-পরই ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আইএমএফ ও ইইউতে সর্বাপেক্ষা প্রভাবশালী দেশ জার্মানী প্রকাশ্যেই বেইল আউটের পক্ষে থাকাদের দিকে সমর্থনের হাত বাড়ায়। বিশেষতঃ জার্মানী স্পষ্টই জানিয়ে দেয় যে, গ্রীসকে বেইল আউট মানতেই হবে। মহাদেশের কুটনৈতিকরা তৎপর হন গ্রীসের রাজনৈতিক মহলে প্রভাব বাড়াতে। আন্তর্জাতিক সংবাদ-মাধ্যমগুলোকে ব্যবহার করে বেইল আউটের বিরুদ্ধে যাওয়াকে নেতিবাচক বলে প্রচার করা শুরু হয়। বিশ্লেষকরা একে 'ফীয়ার মঙ্গারিং' বা ভীতি-প্রদর্শনের মাধ্যমে গ্রীক ভৌটারদের সিদ্ধান্ত প্রভাবিত করা বলে অভিহিত করেছেন। নির্বাচনের ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন দ্রুত সরকার গঠনের অনুরোধ করেছে। ইইউ'র হস্তক্ষেপের দিকে ইঙ্গিত করে সিরিজার জনপ্রিয় তরুণ নেতা অ্যালেক্সিস তিসিপ্রাস বলেন, 'আমাদের বিপক্ষে রয়েছে ভিতর ও বাইরের শত্রুদের এক অপবিত্র জোট'।

    পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, নির্বাচনে বিজয়ী হলেও নিউ ডেমৌক্র্যাসীর পক্ষে কোয়ালিশন সরকার গঠন করতে যথেষ্ট কসরৎ করতে হবে। কারণ, সিরিজা জোট ইতোমধ্যেই সাফ জানিয়ে দিয়েছে যে, তারা বেইল আউট-পন্থী কোনো কোয়ালিশনে যাবে না। সিরিজার নেতা তিসিপ্রাস বলেন, '(নিউ ডেমৌক্রেসী কোয়ালিশন গঠনে ব্যর্থ হলে) কোয়ালিশন গঠনের ম্যাণ্ডেইটও আমরা নেবো না'। তিনি আরও বলেন, 'আমরা বিরোধী-দলে থাকবো, কারণ আমরা (বেইল আউটের) বিরোধী'। তবে নিউ ডেমৌক্র্যাসী আজ দাবি করেছে যে, বুধবারের মধ্যে কোয়ালিশোন গঠিত হয়ে যাবে।

    কোয়ালিশন সরকারে নিউ ডেমৌক্রেসীর সঙ্গী হতে পারে তৃতীয় স্থানে থাকা সৌশালিস্ট পাসোক। কিন্তু তাদের পারষ্পরিক রাজনৈতিক ধারার ভিন্নতা ও দীর্ঘদিনের বৈরীতা এ-ক্ষেত্রে একটি অন্তরায় হয়ে দেয়া দিতে পারে। কোয়ালিশনে সিরিজার অন্তর্ভূক্তির প্রচ্ছন্ন দাবী তুলে পাসোক ইতোমধ্যেই বলেছে যে, তাঁরা চায় 'সকলের অংশগ্রণের সরকার'। তবে জনগণের দুর্দশা বিবেচনা না করে বেইল আউটের পক্ষ নেয়া নিউ ডেমৌক্র্যাসী ও পাসোক শেষ পর্যন্ত একটি রফায় পৌঁছে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

    কোয়ালিশনের জন্য নিউ ডেমৌক্র্যাসীর সামনে আর বাকী রইলো চতুর্থ-হওয়া ইণ্ডিপেণ্ডেন্ট গ্রীকস্‌ ও ষষ্ঠ-হওয়া ডেমৌক্র্যাটিক লেফ্‌ট পার্টি-দুটি। রাজনীতির ধারায় তাদের মতো ডানপন্থী হলেও ইণ্ডিপেণ্ডেন্ট গ্রীকস্‌ তীব্রভাবে বেইল-আউটের বিরোধী। ফলে, তাদের সাথে কোয়ালিশনের সম্ভবনা নেই বললেই চলে।

    শেষ সম্ভবনা হিসেবে রইলো ডেমৌক্রেটিক লেফ্‌ট, যারা ১৭টি আসনে জয়ী হয়েছে। যদিও তারা বেইল আউটের বিরোধী নয়, তবে বাম-ধারার রাজনীতি করার কারণে তারাও হয়তো ইতস্ততঃ করবে নিউ ডেমৌক্র্যাসীর সাথে কোয়ালিশনে যেতে। উল্লেখ্যঃ গতমাসের নির্বাচনের পর তারা 'সিরিজাকে ছাড়া কোয়ালিশন নয়' এমন মনোভাব দেখিয়ে নিউ ডেমৌক্র্যাসী ও পাসোক উভয় দলের সাথেই কোয়ালিশনে যেতে অস্বীকার করে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন