• গ্রীসের রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিক্রিঃ 'ন্যূনতম রাষ্ট্রীয় মালিকানা' আইন বাতিল
    greece_for_sale.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৭ সেপ্টেম্বর ২০১২, শুক্রবারঃ গতকাল গ্রীসের অর্থমন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, দেশটির পরিষেবা ও বৃহৎ-শিল্প খাতে 'ন্যুনতম রাষ্ট্রীয় মালিকানা' থাকার আইনটি বাতিল করা হয়েছে'। এ-পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে দেশটির রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি দেশি-বিদেশি পুঁজিপতিদের হস্তগত হওয়া থেকে ঠেকাতে বিরুদ্ধে প্রধান রক্ষাকবচটি ধ্বংস হলো।

    গ্রীসের আইন অনুযায়ী দেশটির বড়ো শিল্প ও বিদ্যুত-বন্দর-টেলিফৌন-রেইল-বিমানবন্দর ইত্যাদি খাতে সকল বিনিয়োগের একটি ন্যূনতম অংশ রাষ্ট্রের মালিকানায় থাকে। ফলে নাগরিকরা এ-সংস্থাগুলোর অর্জিত মুনাফা থেকে উপকৃত হন। উল্লিখিত আইনটি বাতিল হওয়ায় এ-সেবাগুলো শীঘ্রই দেশি কিংবা বিদেশি ব্যাক্তিগত মালিকানায় চলে যাবে। অর্থাৎ এখন থেকে এর পূর্ণ মুনাফা গ্রীসের নাগরিকগণ নন, বেসরকারী মালিকরা উপভোগ করবেন।

    অর্থনৈতিক মন্দায় পতিত গ্রীস গত দুই বছরে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আন্তর্জাতিক মূদ্রা সংস্থা (আইএমএফ) এর কাছ থেকে বেইল দুই কিস্তিতে মোট ২৪০ বিলিয়ন ইউরো বেইল আউট বা ঋণ নিয়েছে। তবে এ-সংস্থাগুলো থেকে ঋণ নেয়ার সময় যথারীতি কঠোর বেসরকারী করণ ও রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি বিক্রি করার শর্ত দেয়া হয়। বিশ্লেষকরা বলছেন, ইইউ ও আইএমএফের সকল শর্ত পূরণ করতে গ্রীসের অন্ততঃ ৭০টি আইন পরিবর্তন বা একেবারেই বাতিক করতে হবে।

    এ-মুহূর্তে গ্রীসের বেতারত্ব ২৪% এর উপরে। তার উপরে এ-বছর দেশটির জিডিপি ৬% এর চেয়েও বেশি সঙ্কুচিত হয়ে জনগণের দূর্দশা আরও বাড়িয়ে তুলেছে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন