• চীনে ঘুষ-প্রদানের স্বীকারোক্তি ব্রিটিশ ওষুধ প্রস্ততকারী গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনেরঃ লণ্ডন থেকে অভিযোগ অস্বীকার
    china_charges_glaxo_with_corruption.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১১ জুলাই ২০১৩, বৃহস্পতিবারঃ ব্রিটিশ ওষুধ প্রস্ততকারী গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনের কর্মকর্তারা চীনে "ভয়াবহ" দূর্নীতির সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। বিদেশি কিছু কোম্পানির বিরুদ্ধে চলমান তদন্তের মাঝে আজ সে-দেশের গণ-নিরাপত্তা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে এ-সংবাদ। তবে প্রতিষ্ঠানটির লণ্ডনস্থ সদর দপ্তর থেকে দূর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

    জালিয়াতির অভিযোগে চীনের তিনটি শহরে কর্মরত গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনের কয়েকজন কর্মকর্তাকে সপ্তা-দুয়েক আগে আটক করে পুলিস। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা 'চিকিৎসকদেরকে ঘুষ' দেওয়া ও 'ভূয়া কাগজ দেখিয়ে কর ফাঁকি' দেওয়ার কথা স্বীকার করেন। চৈনিক মন্ত্রণালয়টির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জানানো হয়, তদন্ত এখনও চলছে। 

    চীনের অভিযোগ অস্বীকার করে গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনের একজন মুখপাত্র বলেন, "[কোনও] চিকিৎসক বা সরকারী কর্মকর্তাকে ঘুষ-প্রদান কিংবা দূর্নীতির কোন প্রমান আমরা পাইনি"। তবে তিনি জানান, চীন কর্তৃপক্ষের সাথে সহযোগিতা করতে কোম্পানিটি প্রস্তুত। 

    সম্প্রতি 'চীনে গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনের ঘুষ' দেয়ার প্রসঙ্গে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয় যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদপত্র ওয়ালস্ট্রীট জার্নালে। অভিযোগ উঠেছে, বয়সজনিত চামড়া কুঁচকানো সারাতে বোটোক্স চিকিৎসার প্রসার ঘটাতে গ্ল্যাক্সৌস্মিথক্লাইনের বিক্রয় কর্মকর্তারা চীনের চিকিৎসকদেরকে ঘুষ দিচ্ছিলেন। লোভী চিকিৎসকদেরকে নগদ অর্থ দেওয়া ছাড়াও তাদের দামী রেঁস্তোরায় ভোজন ও বিভিন্ন স্থানে ভ্রমণের ব্যয়ও বহন করেছে ব্রিটিশ এ-কোম্পানিটি।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন