• জাতীয় স্বার্থ বিপদগ্রস্ত হলে অগ্রীমাক্রমণ করা হবেঃ ইরানের উপ-সেনাপ্রধান
    Iran-Army-Deputy-Hejazi.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২১ ফেব্রুয়ারী ২০১২, মঙ্গলবারঃ  ইরানের উপর ইসরায়লের সম্ভাব্য আক্রমণ নিয়ে যখন বিশ্ব-পরিসরে উৎকন্ঠা বিরাজিত, তখন এর উত্তরে খোদ ইসরায়েলের উপরই অগ্রীমাক্রমণের সম্ভাবনা জানান দিয়ে হুঁশিয়ারি ঘোষণা করেছে ইরানের সেনা-নেতৃত্ব।

    আজ মঙ্গলবার ইরানের আধা-সরকারী বার্তা-সংস্থা ফার্স জানিয়েছে যে, ইরানের জাতীয় স্বার্থ ‘শত্রু’র দ্বারা বিপদগ্রস্ত হয়ে উঠলে, ‘প্রি-এম্পটিভ এ্যাটাক’ বা অগ্রীমাক্রমণ করা হবে। হেজাযি বলেন, ‘এখন আমাদের কৌশলিক নীতি হচ্ছে এই যে, যদি আমরা অনুভব করি যে শত্রুরা আমাদের জাতীয় স্বার্থ বিপদগ্রস্ত করতে চায় এবং তা করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাহলে তারা কী করলো তা দেখার জন্য অপেক্ষা না করে আমরাই কর্মে অবতীর্ণ হবো।’

    অন্যদিকে, ইরানের ইংরেজি সংবাদ-মাধ্যম প্রতিরক্ষা-মন্ত্রী আহমাদকে উদ্বৃত করে জানাচ্ছে, দেশটি আন্তর্জাতিক জলসীমায় তার উপস্থিতি শক্তিশালী করতে আগ্রাহী।

    রুশ সংবাদ-মাধ্যম আরটি জানায়, দু-সপ্তাহ আগে  বলেছেন, ইরানী নৌবাহিনীর দুটো যুদ্ধজাহাজ সুয়েজ খাল অতিক্রম করেছে, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েল নিবিড় নজরে পর্যবেক্ষণ করেছে।

    এদিকে, আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংগঠন আই-এ-ই-এ এক মাসের মধ্যে ইরানে দ্বিতীয় পরিদর্শন সমাপ্ত করে প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য ভিয়েনাতে তাদের সদর দপ্তরে ফিরে গিয়েছে।

    ইরান থেকে তেল আমদানির উপর ইরোপীয়ান ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা, যা আসছে জুন মাস থেকে প্রযোজ্য, তার জবাবে ইরান গতকাল প্রতীক-প্রতিক্রিয়া হিসেবে ব্রিটেইন ও ফ্রান্সে তেল বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে।

    উল্লেখ্য, সম্প্রতি ইসরায়েলী প্রতিরক্ষা-মন্ত্রী ইয়াহুদ বারাক ইরানের পারমাণবিক ক্ষমতা অনাক্রমণ্য  হয়ে ওঠার আগেই আক্রমণ করা পক্ষে তাগিদ ঘোষণা করে যে, বিশ্ব-পরিসরে উদ্বেগের সৃষ্টি করেছিলেন, তাকে অনিবার্য চিত্রিত করে মার্কিন প্রতিরক্ষা-মন্ত্রী লিয়ন প্যানেটা বলেছিলেন যে তিনি বিশ্বাস করেন যে, ইসরায়েল আগামী এপ্রিল থেকে জুন মাসের মধ্যে ইরান আক্রমণ করবে। 

    কিন্তু গত সপ্তাহান্তে মার্কিন সেনা-প্রধান জেনারেল মার্টিন ডেম্পসী এক টেলিভিশন-সাক্ষাতকারে তাকে ইসরায়লের জন্য অপরিণামদর্শী হবে বলে মন্তব্য করেছেন।

    মার্কিন অবস্থানের মতো হুবহু অবস্থান নিয়ে ব্রিটেইন পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইলিয়াম হেইগ বলেছেন, ইরানের উপর ইসরায়েলী আক্রমণ ঠিক হবে না, যদিও তিনি একই সাথে উল্লেখ করেছেন যে ব্রিটেইনের পক্ষ থেকে বিবেচনার টেবিল থেকে ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়টি তুলে নেয়া হয়নি।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন