• জার্মানীর র‍্যামষ্টাইন এ্যায়ারবেইসে মার্কিন ড্রৌন-বিরোধী মানব-বন্ধন
    Ramstein.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - রোববার, ১২ জুন ২০১৬ঃ জার্মানীর র‍্যামষ্টাইনে অবস্থিত মার্কিন বিমানঘাঁটিকে ভিন্ন দেশে ড্রৌন আক্রমণ পরিচালনায় ব্যবহার করার প্রতিবাদে ও বিমানঘাঁটি বন্ধ করার দাবীতে গতকাল এক মানববন্ধনে মিলিত হয়ে বিক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাজার-হাজার জার্মান।


    'ষ্টপ র‍্যামষ্টাইন - নোও ড্রৌন ওয়ার' (Stop Ramstein - No Drone War) নামের একটি জোটের আয়োজনে সঙ্ঘটিত এই প্রতিবাদী মানববন্ধনে অভিযোগ করে বলা হয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরাক, সিরিয়া, ইয়ামেন, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে ড্রৌন তথা মনুষ্য বিহীন বোমারু বিমান হামলা চালাবার জন্যে র‍্যামষ্টাইন ঘাঁটি ব্যবহার করছে। জোটের দাবী, এই কাণ্ড জার্মান সংবিধান-বিরোধী।

    পুলিসের আন্দাজিত হিসেবে বলা হয়, মানববন্ধনটিতে ৩ থেকে ৪ হাজার লোকের সমাবেশ হয়ছে। কিন্তু আয়োজক জোটের দাবী যে, সেখান ৫ থেকে ৭ হাজার বিক্ষোভকারী যোগ দিয়েছেন।

    নয় কিলোমিটার দীর্ঘ এই মানববন্ধনে র‍্যামষ্টাইন বিমানঘাঁটিকে শুধু ড্রৌন হামলার কাজে ব্যবহারেরই প্রতিবাদই করা হয়নি, জার্মান বিক্ষোভকারীরা তাঁদের দেশে এই মার্কিন বিমানঘাঁটিটি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করে দেওয়ার দাবী জানান।

    উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে প্রথম বারের মতো জানা যায় যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দূরবর্তী স্থানে সন্দেহিত সন্ত্রাসীদের হত্যা করার জন্যে জার্মানীর র‍্যামষ্টাইন বিমানঘাঁটি ব্যবহার করে ড্রৌন আক্রমণ পরিচালনা করেছে। প্রাক্তন মার্কিন ড্রৌন অপারেইটার ব্র্যাণ্ডন ব্রায়াণ্ট সে-বছর জার্মান সংবাদ-মাধ্যমে সাক্ষাতকার দিয়ে এই তথ্য প্রকাশ করেছিলেন।

    গতকালের প্রতিবাদী মানববন্ধনে উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক ব্যক্তিদের মধ্যে একজন ছিলেন প্রাক্তন জার্মান অর্থমন্ত্রী ও জার্মান সৌশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রধান অস্কার ল্যাফোণ্টেইন। তিনি ড্রৌন আক্রমণকে আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে-সাথে বর্তমান জার্মান সরকারেরও সমালোচনা করেন বিষয়টি বেআইনী হওয়া সত্ত্বেও প্রতিবাদহীন থাকার কারণে।

    মার্কিন বিমানঘাঁটির বিরুদ্ধে সংঘটিত গতকালের জার্মান মানবন্ধনে প্রদর্শিত প্ল্যাকার্ডের উল্লেখযোগ্য পাঠ ছিলো, "র‍্যামষ্টাইন বন্ধ করো", "ন্যাটৌর প্রতি না", "বাড়ী যাও"।

    ইউকেবেঙ্গলির পর্যবেক্ষণ মতে, গতকালের জার্মান মানববন্ধনটি জার্মানীর মাটিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কর্তৃত্বের প্রতি জার্মান জনগণের প্রত্যাখ্যানকে প্রতীকায়িত করছে, বিকাশামান বৈশ্বিক সামরিক পরিস্থিতির জন্যে তাৎপর্যপূর্ণ।

    সূত্রঃ রয়টার্স, আরটি, ডয়েশ ভেলে

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন