• তুর্কী যুদ্ধবিমান ভূপাতিত সিরিয়ার আকাশ-সীমায়ঃ পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণের শপথ তুরস্কের
    Turkish-jet-downed.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৩ জুন ২০১২, শনিবারঃ  গতকাল শুক্রবার সিরিয়ার আকাশ-সীমা লঙ্ঘন করে দেশটির ভূমধ্যসাগরীয় জলসীমার উপর দিয়ে উড়ে যাবার কালে এক একটি তুর্কী এফ-৪ যুদ্ধবিমানকে আঘাত করে ভূপাতিত করেছে সিরিয়ার সেনাবাহিনী। উত্তরে তুর্কী প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ গুল আজ বলেছেন, সন্দেহাতিতভাবে এ-বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

    সিরিয়ার সরকারী বার্তা সংস্থা সানা সামরিক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে নিশ্চিত করেছে যে, একটি অপরিচিত আকাশ বস্তু দেশটির আকাশ-সীমা লঙ্ঘন করলে, বিমান-বিধ্বংসী গোলান্দাজ বাহিনী উপকূল থেকে ১ কিলোমিটার দূরে তা আঘাত করে ভূপাতিত করে।

    মুখপাত্রটি জানান, ভূপাতিত হবার পর বস্তুটিকে একটি তুর্কী যুদ্ধ-বিমান বলে চিহ্নিত করা হয় এবং সিরিয়ার আইন অনুসারে এ-বিষয়ে কাজ করা হচ্ছে। তিনি এ-ও উল্লেখ করেন যে, সিরিয়া ও তুরস্কের নৌবাহিনীর যৌথ উদ্যোগে উদ্ধারচেষ্টা চলছে।

    ঘটনাটির পর-পর তুর্কী প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে তুর্কী যুদ্ধবিমানটির ভূপাতিত হবার ঘটনা স্বীকার করে সিরিয়াকে দায়ী করা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, আমাদের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহ ও সিরিয়ার সাথে যৌথ অনুসন্ধান ও উদ্ধারচেষ্টা থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বুঝা যাচ্ছে যে, আমাদের যুদ্ধবিমানটি ভূপাতিত হয়েছে সিরিয়ার দ্বারা।

    আজ প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ গুল বলেছেন, সিরিয়ার হাতে তুর্কী যুদ্ধবিমান ভূপাতিত হওয়ার ঘটনাটি উপেক্ষা করা একটি অসম্ভব ব্যাপার। তিনি দাবি করেন, যুদ্ধবিমানটি সিরিয়ার আকাশ-সীমা উদ্দেশ্যমূলকভাবে লঙ্ঘন করেনি।

    তিনি বলেন, ‘সমুদ্রের উপর গতি বিবেচনা করলে, যুদ্ধবিমান উড্ডয়ন-কালে কখনও-কখনও সীমান্তের ভেতরে-বাইরে হয়ে যাবার ঘটনা নিয়মমাফিক। এগুলো কু-উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় - যুদ্ধবিমানের গতির কারণে নিয়ন্ত্রণের বাইরে ঘটে যাওয়া ঘটনা।’

    প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘তুরস্কের পক্ষ থেকে যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে, এ-ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই।’

    এদিকে, জাতিসংঘের মহাসচিব বাম কিমুন সিরিয়া ও তুরস্কের প্রতি আত্মসংবরণ করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন