• ত্রিপোলির নৌ-ঘাটিতে বিষ্ফোরণঃ গেরিলা যুদ্ধ শুরু করেছে লিবীয়রা
    libya_tripoli_blast_24Sep11.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১১, রোববারঃ  গতকাল শনিবার লিবিয়ার ত্রিপোলি বন্দর-সংলগ্ন একটি নৌ-ঘাটিতে অন্ততঃ ৬টি শক্তিশালী বিষ্ফোরণ ঘটেছে। বিষ্ফোরণের পর-পর নগরীর আকাশ ঘন কালো ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে যা বহুদূর থেকেও দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে পশ্চিমা একাধিক সংবাদ-মাধ্যম জানায়, অন্ততঃ একটি বিষ্ফোরণ ঘটেছে আল-কায়েদা বিদ্রোহীদের জন্য ফরাসী অস্ত্রবাহী একটি নৌ-যানে।

    বিদ্রোহীদের এনটিসির অনুগত একজন বন্দর-মুখপাত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে ডেইলি টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, এটি সম্ভবতঃ বন্দরের একটি রঙের গুদামে দুর্ঘটনা-মূলক আগুন-লাগা থেকে ঘটা বিষ্ফোরণ। বিদ্রোহীরা সাংবাদিকদের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে বাধা দিচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। কিন্তু তাঁদের এ-দাবী নাকচ করে দিয়ে ন্যাটো ও আল-কায়েদার বিরুদ্ধে লড়াইরত লিবীয় যোদ্ধারা এ-বিষ্ফোরণের কৃতিত্ব দাবী করেছে।

    এদিকে লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফীর প্রতি অনুগত তারহুনা গোত্রের যোদ্ধারা ত্রিপোলিতে প্রবেশ করে গেরিলা লড়াই শুরু করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তাঁদের একটি অংশ বিগত কয়েক সপ্তাহ যাবত 'হিট এ্যান্ড রান' পদ্ধতিতে আক্রমণ করে বিদ্রোহী আল-কায়েদা যোদ্ধাদের সরবরাহ-পথে বাধার সৃষ্টি করে চলেছে। এর ফলে বিদ্রোহীরা  ক্রমাগত হামলা চালিয়েও গাদ্দাফীর জন্ম-শহর সিরত দখল নিতে পারছে না। 

    পরিস্থিতি-বিবেচনায় লিবীয় সেনাবাহিনীর ৩২তম ব্রিগেইড প্রচলিত পন্থা পরিহার করে পূর্ণদমে গেরিলা লড়াই শুরু করেছে। ২০-২৫ জনের ছোটো-ছোটো গ্রুপে ভাগ হয়ে তাঁরা 'হিট এ্যান্ড রান' হামলা চালাচ্ছে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সকল শহরে। এলিট এ-ব্রিগেইডের নেতৃত্ব দিচ্ছেন গাদ্দাফী-পুত্র খামিস আল-গাদ্দাফী, যাঁর মৃত্য হয়েছে বলে বিভিন্ন সময়ে অন্ততঃ ৮ বার 'নিশ্চিত খবর' প্রচার করেছে গাদ্দাফী-বিরোধী সংবাদ-মাধ্যমগুলো। উল্লেখ্য, সম্প্রতি খামিসের পদমর্যাদা জেনারেলে উন্নীত করা হয়েছে বলে লিবীয় সরকারী সূত্রে জানানো হয়েছে।

    আলজেরিয়ার সীমান্তবর্তী ঘাদামিস শহরে গেরিলা যোদ্ধারা অকস্মাৎ হামলা চালিয়ে অন্ততঃ ৬ বিদ্রোহীকে হত্যা করেছে। সমর-বিশ্লেষকরা মনে করছেন, লিবীয় গেরিলাদের সীমান্ত পেরিয়ে আলজেরিয়ায় যাওয়া এবং সেখানে সংঘবদ্ধ হয়ে লিবিয়ায় পুনঃপ্রবেশ করে হামলা পরিচালনা ইঙ্গিত করছে যে, ন্যাটোর বিরুদ্ধে দীর্ঘস্থায়ী এক যুদ্ধের দিকে এগুচ্ছে উত্তর-আফ্রিকার এ-আরব রাষ্ট্রটি।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন