• দয়ালু-রক্ষণশীলতার দিন শেষঃ বেনিফিট-ছাটাই পরিকল্পনা ঘোষণা করলেন ক্যামেরোন
    uk_david_cameron.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৫ জুন ২০১২ সোমবারঃ  নতুন করে আরও রাষ্ট্রীয়-বেনিফিট হ্রাসের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন জোট-সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও কনসার্ভেটিভ পার্টির নেতা ডেইভিড ক্যামেরোন। এবারের কাট-ছাটের লক্ষ্যস্থলে রয়েছে তরুণ, বেকার ও বড়ো পরিবারগুলো।

    আজ দক্ষিণ-পূর্ব ইংল্যাণ্ডের কেন্টে দেয়া এক বক্তৃতায় ক্যামেরোন বলেন, 'দয়ালু রক্ষণশীলতার দিন শেষ'। রাষ্ট্র-কর্তৃক বিবিধ নাগরিকগণকে ভাতা দেয়াকে 'অধিকারের সংস্কৃতি' উল্লেখ করে তিনি এর অবসান দাবী করেন।

    ক্যামেরোনের প্রধান প্রস্তাবনাগুলো হচ্ছেঃ

    • ২৫ এর কম বয়সীদের হাউসিং বেনিফিট সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাহার করা হবে। এর আওতাভূক্ত হবে অন্ততঃ ৩ লাখ ৮০ হাজার তরুণ-তরুণী, যাঁদের নিজেদের খরচ নিজেরদেরকেই চালাতে হবে কিংবা বাবা-মায়ের সাথে গিয়ে বসবাস করতে হবে।
    • কর্মহীন পরিবারগুলোর - বিশেষতঃ যাদের শিশুর সংখ্যা বেশি - তাদের কিছু-কিছু ভাতা সম্পূর্ণ বন্ধ করা বা কমিয়ে ফেলা হবে। শিশু-ভাতাও এর সাথে অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।
    • দীর্ঘ-মেয়াদে বেকার-ভাতা প্রাপ্তদেরকে পূর্ণ-কালীন কমিউনিটি-কর্মে নিযুক্ত হতে হবে, অন্যথায় তাঁরা সকল ভাতা-সুবধা হারাবেন।

    প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে জোট সরকারের অপর অংশীদার লিবারেল ডেমৌক্রেট পার্টির ড্যানি এ্যালেক্সাণ্ডার  এর বিরোধিতা করে 'আশির দশকের ভুল আবার না করার' জন্য সতর্ক করে দেন। উল্লেখ্যঃ গত শতকের আশির দশকে ক্ষমতাসীন কনসার্ভেটিভ পার্টি ব্যাপকভাবে রাষ্ট্রীয়-ভাতা কর্তন ও নিয়ন্ত্রণের নীতি গ্রহণ করেছিলো।

    বিরোধীদল লেবার পার্টিও প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে। দলটির এমপি লিয়াম ডমিনিক বার্ণ বলেছেন, 'সরকার ভুল দৃষ্টিভঙ্গি থেকে প্রস্তাব করছে'।

    এদিকে গৃহহীনদের সেবাদানকারী দাতব্য প্রতিষ্ঠান 'শেল্টার' সতর্ক করে দিয়েছে যে, তরুণদেরকে হাউসিং বেনিফিট থেকে বঞ্চিত করলে গৃহহীনের সংখ্যা আরও অনেক বেশি বেড়ে যাবে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন