• নেপালী কংগ্রেসের নেতা সুশীল কৈরালা প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত
    nepal_sushil_koirala.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, সোমবারঃ দীর্ঘদিন ধরে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে আগামীকাল থেকে নতুন একজন প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে নেপাল। আজ নেপালী কংগ্রেস পার্টির প্রেসিডেণ্ট ৭৪ বছর বয়েসী সুশীল কৈরালা দেশটির সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। কাঠমণ্ডু থেকে সংবাদ জানিয়েছে হিমালয়ান টাইম্‌স।

    নেপালী সংসদে আজ উপস্থিত ৫৫৩ সদস্যের মধ্যে ৪০৫ জন কৈরালার পক্ষে হ্যাঁ ভৌট দেন, যা সংসদের মোট ৫৭৫ আসনের দুই তৃতীয়াংশের চেয়ে বেশি। ১৪৮ জন সদস্য কৈরালার বিপক্ষে ভৌট দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্পীকার সুর্য বাহাদুর থাপা।

    কৈরালাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হতে অন্ততঃ ১৭টি দল সমর্থন দেয়। এর মধ্যে রয়েছে তাঁর নিজ দল কংগ্রেস, কমিউনিস্ট পার্টি অফ নেপাল (ইউনিফাইয়েড মার্ক্সিস্ট-লেনিনিস্ট), কমিউনিস্ট পার্টি অফ নেপাল (মার্ক্সিস্ট-লেনিনিস্ট), রাষ্ট্রীয় প্রজাতন্ত্র পার্টি, দলিত জনজাতি পার্টি, নেপালি জনতা দল ইত্যাদি।

    পুষ্প কামাল দাহাল প্রচণ্ডের ইউনিফায়েড কমিউনিস্ট পার্টি অফ নেপাল (মাওবাদী) বিরোধীতা করেছে কৈরালার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব। দশ বছরের 'জনযুদ্ধ' শেষে এই দলটি বিজয়ী হয়ে নেপালের শতোবছরের পুরনো রাজতন্ত্র উচ্ছেদ করে দেশটিকে একটি রিপাবলিক বা জনতন্ত্রের রূপ দেয়। ২০০৮ সালের নির্বাচনে প্রচণ্ডের দল বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করলেও পরে সেনাপ্রধানকে বরখাস্ত করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রেসিডেণ্টের সাথে বিরোধ বাধলে সরকার থেকে নিজেদেরকে প্রত্যাহার করে নেয়।

    ভৌট গ্রহণের আগে কৈরালা অঙ্গীকার করেন তিনি এক বছরের মধ্যে সংবিধান উপহার দিতে সচেষ্ট হবেন। তিনি পুনর্মিলন ও ঐক্য প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করবেন বলেও জানান। প্রতিবেশী ভারত ও চীনের কাছ থেকে নেপাল আরও বেশি সহযোগিতা পাবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন