• পাকিস্তানের খাইবার অঞ্চলে বোমা-বিস্ফোরণঃ ৩৫ নিহত ও ৬৯ আহত
    Pak-blast-Khaiber.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১০ জানুয়ারী ২০১২, মঙ্গলবারঃ  আফগান সীমান্তের কাছে পাকিস্তানের খাইবার অঞ্চলে আজ মঙ্গলবার এক সাংঘাতিক বোমা-বিস্ফোরণে কমপক্ষে ৩৫ ব্যক্তি নিহত এবং আরও ৬৯ জন আহত হয়েছেন, যা পাকিস্তানী তালিবানদের কাজ বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

    উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের রাজধানী পেশাওয়ার থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে জামরুদ বাজারে একটি বাস টার্মিনালে সংঘটিত বিস্ফোরণটি গাড়ী-পাতা ও দূর-নিয়ন্ত্রিত বোমা বলে ধারণা করা হচ্ছে। জান-মালের ক্ষতির পরিমাণের সর্বোচ্চে নেবার উদ্দেশ্যে বাজারের বাস টার্মিনালে হবার কারণে বিস্ফোরণটি বেশ কয়েকটি গাড়ীকে আঘাত করে।

    উল্লেখ্য, ঐতিহাসিক খাইবার গিরিপথই হচ্ছে পাকিস্তানের ভিতর দিয়ে আফগানিস্তানে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনীর রসদ সরবরাহের রাস্তা। আর্থিক সাশ্রয়ের জন্য নৌপথে সিন্ধু প্রদেশের করাচি বন্দর এবং সেখান থেকে স্থলপথে উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশের খাইবারে এবং সবশেষে খাইবার গিরি-পথে পর্বত পেরিয়ে আফগানিস্তানে নেয়া হয়, যা প্রায়শঃ তালিবান ও আল-কায়দার সাথে সম্পর্কিত ইসলামবাদী সশস্ত্র দলসমূহের সহজ আক্রমণ লক্ষ্য। 

    আজকের বোমা-বিস্ফোরণের লক্ষ্য স্পষ্টতঃ ন্যাটো নয়। এবং কারা ঘটিয়েছে এ-বিস্ফোরণ, তাও জানা জান যায়নি। দৈনিক গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন মতে, পাক-সরকার সমর্থিত স্থানীয় প্যারামিলিটারী বা মিলিশিয়াদের উপর তালিবানদের আক্রমণ এটি। সাম্প্রতিক কালে, সীমান্ত অঞ্চলে প্যারামিলিটারী সদস্যদের উপর ব্যাপক আক্রমণ হবার একাধিক ঘটনা ঘটেছে।

    পাকিস্তানের ডন পত্রিকা এএফপি’র পরিসংখ্যান উল্লেখ করে জানায়, গত ২০১১ সালে পাকিস্তানে ১২০টি বোমা আক্রমণের ঘটনা ঘটে। ২০১০ সালের সংখ্যাও একই। তবে ২০০৯ সালে এর পরিমান ছিলো ২০০।

    পরিসংখ্যান-মতে, গত ১৮ মাসে হামলার সংখ্যা উল্লেখ যোগ্যভাবে কমেছে। তবে, আজকের হামলটা সাম্প্রতিক হামলাগুলোর মধ্যে মারাত্নকতম বলে মন্তব্য করেছে একাধিক সংবাদ মাধ্যম।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন