• পাকিস্তানে শিয়া-সুন্নি বৈরিতাঃ বোমা-হামলায় ৫৭ নিহত
    pakistan_bomb_kills_shiite.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৬ জুলাই ২০১৩, শক্রবারঃ  আজ সন্ধ্যায় পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় পারাচিনারে পর-পর দু"টো বোমা-হামলায় অন্ততঃ ৫৭ ব্যক্তি নিহত হয়েছে, যার বেশিরভাগই শিয়া মতাবলম্বী। সুন্নি তালিবানদের সাথে সংশ্লিষ্ট একটি সংগঠন এ-ঘটনার কৃতিত্ব দাবী করেছে।

    একটি শিয়া মসজিদ ও নিকটবর্তী পাড়ায় এ-বোমা বিষ্ফোরণে আহত হয়েছে প্রায় ১০০ ব্যক্তি। স্থানীয় শিয়া নেতারা এ-ঘটনার নিন্দা জানিয়ে ৩ দিনের শোক ঘোষণা করেছেন। তাঁরা শান্তি রক্ষায় জনগণের ঐক্যের কথাও বলেছেন। শিয়া রাজনৈতিক সংঘ তেহরিক নাফাজ ফিকহ-ই-জাফারিয়ার প্রধান আগা হামিদ মূসাভি বলেছেন, "শিয়া-সুন্নি ভাই-ভাই। মানুষকে শান্তিপুর্ণ থেকে ও ঐক্য প্রদর্শন করে শত্রুর ষড়যন্ত্র নস্যাত করে দিতে হবে"।

    স্থানীয় সময় সন্ধ্যে ৬টার দিকে প্রথম বোমাটি বিষ্ফোরিত হয় শিয়া সেণ্ট্যাল মসজিদের নিকটে। কয়েক মিনিটের ব্যবধানে নিকটবর্তী এলাকায় দ্বিতীয় একটি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটে যাতে ব্যপক ধ্বংসযজ্ঞ সাধিত হয়।

    পাকিস্তান সরকারের একজন মুখপাত্র রিয়াজ মেশুদ বলেন, "প্রথম বোমাটি একটি আত্মঘাতি বোমারুর কাজ। তবে দ্বিতীয়টি সম্বন্ধে আমরা বিস্তারিত জানতে পারিনি"। তিনি আরও জানান, ইফতারের ঠিক আগে-আগে নিরাপত্তা ব্যবস্থার সাময়িক শিথিলিতার সুযোগে তালিবান এ-হামলা চালিয়েছে।

    পেশোয়ারের দক্ষিণে অবস্থিত আফগান-সীমান্তবর্তী কুর্‌রাম উপজাতীয় অঞ্চলের রাজধানী পারাচিনার বেশিরভাগ নাগরিক ধর্মে শিয়া মুসলিম। তবে আফগানিস্তানে ও পাকিস্তানে সুন্নি আধিপত্যবাদী তালিবানদের উত্থানের পর থেকে এ-অঞ্চলের শিয়া মতাবলম্বীদের উপর আক্রমণ চলছে। ২০০৯ সালে বেশ কিছুদিন তালিবানরা এ-শহরের সাথে পাকিস্থানের অন্যান্য অংশের যোগাযোগের পথ অবরোধ করে কার্যতঃ একে দেশটি থেকে বিচ্ছিন্ন করে রাখে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন