• পিছু হটছে আল-কায়েদাঃ জাতিসঙ্ঘের অনুমতি ছাড়াই সিরিয়া আক্রমণ করতে পারে যুক্তরাষ্ট্র
    syria_us_planning_attack.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৫ মার্চ ২০১২, সোমবারঃ  সিরিয়ার সরকারী সেনাদের পাল্টা-আক্রমণের মুখে একের পর এক দখলকৃত শহর থেকে পিছু হটছে বিদ্রোহী-যোদ্ধারা। এ-অবস্থায় 'যুক্তরাষ্ট্র জাতিসঙ্ঘের অনুমতি ছাড়াই সিরিয়া আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে', আশরাক আল-আসওয়াত সংবাদপত্রের বরাত দিয়ে এ-খবর পরিবেশন করেছে ইসরায়েলের সংবাদ মাধ্যম ওয়াইনেট নিউজ।

    লিবিয়ার ন্যাশনাল ট্রানজিশনাল কাউন্সিলের আদলে গঠিত সিরিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিলের যোদ্ধাদের মধ্যে রয়েছে পক্ষ-বদলকারী কিছু সরকারী সেনা এবং লিবিয়া, আফগানিস্তান, ইরাক ও মধ্যপ্রাচ্যের আরও কয়েকটি দেশ থেকে আসা আল-কায়েদা যোদ্ধারা। এমনকি দৃশ্যতঃ বিদ্রোহীদের পক্ষাবলম্বনকারী পশ্চিমা দেশগুলোও স্বীকার করছে সিরিয়ার আল-কায়েদার যোদ্ধাদের উপস্থিতি।

    গতমাসে সিরিয়ার সংঘটিত দু'টো বড়ো ধরণের বোমা-হামলার ঘটনাকে আল-কায়েদার কাণ্ড বলে চিহ্নিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়াও একাধিকবার বলেছে আল-কায়েদার যোদ্ধারা সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

    যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে আশরাক আল-আসওয়াত জানিয়েছে সিরিয়ার মার্কিন সামরিক সংশ্লিষ্টতার শুরুতে সিরিয়া-তুরষ্ক সীমান্তে একটি নিরাপদ বাফার বা প্রাবর-অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা হবে, যার মধ্য দিয়ে শরণার্থীরা তুরষ্কে যেতে পারবে। পরবর্তী প্রয়োজন হলে ন্যাটোর সদস্য তুরষ্কও এ-সামরিক অভিযানে অংশ নিতে পারবে।

    যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনার দ্বিতীয় অংশে রয়েছে সিরিয়ায় বিমান-উড্ডয়নে অবরোধ তৈরি করে বোমারু বিমানের মাধ্যমে আক্রমণ পরিচালনা করা।  ১৯৯৯ সালে কসোভোতেও যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে একই পদ্ধতিতে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে বিমান হামলা করেছিল ন্যাটো।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন