• পুঁজিবাদকে ‘মানবিক’ ও ‘শোভন’ করে বাঁচাতে চান লেবার-নেতা এড মিলিব্যাণ্ড
    Milliband-saves-capitalism.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১২, বুধবারঃ লেবার দলের নেতা এড মিলিব্যাণ্ড মনে করেন পুঁজিবাদ হচ্ছে ‘লীস্ট ওয়ার্স্ট সিস্টেম’ (স্বল্পতম নিকৃষ্টতম ব্যবস্থা), তাই তিনি এই ব্যবস্থাকে ‘হিউমেইন এ্যাণ্ড ডিসেন্ট’ (মানবিক ও শোভন) করার মধ্য দিয়ে রক্ষা করতে চান। তাঁর রাজনৈতিক-অর্থনীতি চিন্তার পরিচয় দিতে গিয়ে এ-কথাগুলো আজ দৈনিক টেলিগ্রাফে প্রকাশিত এক সাক্ষাতকারে বলেন তিনি।

    পুঁজিবাদী ব্যবস্থায় কিছু মানুষ অঢেল সম্পদের মালিক হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তাতে আমি মনে কিছু করি না, যদি তা কষ্টার্জিত হয়।’ তবে, পুঁজিবাদে ‘অসাম্যের (অতি)মাত্রা আমাদের সমাজকে ক্ষতযুক্ত করে’ বলে অভিমত দেন মিলিব্যাণ্ড।

    মিলিব্যাণ্ড বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি পুঁজিবাদ হচ্ছে স্বল্পতম নিকৃষ্টতম পদ্ধতি।’ নিজের ব্ল্যাকবেরী ফৌন তুলে সাক্ষাতকার গ্রহণকারী সাংবাদিককে তিনি বলেন, ‘আমি ব্ল্যাকবেরীর সৃষ্টিশীলতাই বলুন বা যা-ই বলুন, তাতে বিশ্বাস করি। কিন্তু আমি চাই এটি আরও শোভন, আর মানবিক, আর ভ্রাতৃত্বমূলক হোক।’

    সম্পদ তৈরী হয় ‘সরকারের সাথে ব্যক্তিমালিকানাধীন খাতের কাজ করার মধ্য দিয়ে’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একটি শিল্পনীতি চাওয়ার মধ্যে আমাদের লজ্জিত উচিত নয়।’ পুঁজিবাদ দু’ধরনের - স্ক্যাণ্ডিনাভীয় ও অ্যামেরিকান - রয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

    ‘ফ্রী মার্কেট’ বা ‘মুক্ত বাজার’ ধারণার প্রতি আলোকপাত করে বলেন, ‘আমরা মার্কেট ইকোনমী (বাজার-অর্থনীতি) চাই, কিন্তু মার্কেট সোসাইটি (বাজার-সমাজ) চাই না।’

    কনসার্ভেটিভ বা রক্ষণশীল মূল্যবোধের মানুষদের মনোযোগ আকর্ষণ করে মিলিব্যাণ্ড তাঁর সাক্ষাতকারে বলেন, নিয়ন্ত্রণহীন মুক্তবাজার মূল্যবান বহু কিছু ধ্বংস করে দিতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ, সাপ্তাহিক ৬০ ঘন্টা কাজ পারিবারিক জীবনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

    মার্ক্সবাদী পিতা রালফ্‌ মিলিব্যাণ্ডের আদর্শে প্রভাবিত ও ‘রেড এড’ নামপ্রাপ্ত মিলিব্যাণ্ড ‘সমাজতন্ত্রকে ব্যর্থ ঈশ্বর বলা যায় কি না?’ প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ‘না’। সমাজতন্ত্রকে একটি অনড় আর্থিক ব্যবস্থার বিপরীতে ‘একগুচ্ছ মূল্যবোধ’ হিসেবে মনে করা মিলিব্যাণ্ড বলেন, ‘এটি হচ্ছে একটি অন্তহীন কাহিনী’ যা পুঁজিবাদের সৃষ্ট অসাম্যের বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া হিসেবে থাকবেই।

    এড মিলিব্যাণ্ড বলেন, ‘যেখান পুঁজিবাদ আছে, সেখানে সমজতন্ত্রও থাকবে, কারণ অবিচারের প্রতি সবসময়ই একটি প্রতিক্রিয়া থাকে।’ তিনি বলেন, ‘আমি পুঁজিবাদকে স্বয়ং পুঁজিবাদ থেকে বাঁচাতে চাই।’

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন