• ফরাসী ও মার্কিন সাংবাদিক নিহত সিরিয়ায়ঃ আসাদ-শাসনের সমাপ্তি চাচ্ছেন সারকোজি
    journalist-killed-in-Homs.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১২, বুধবারঃ  সিরিয়ায় বিদ্রোহী ও সরকারী বাহিনীর রণক্ষেত্রে পরিণত হওয়া হোমসে আজ দুই বিদেশী সাংবাদিক গোলার আঘাতে নিহত হন, যা বিদ্রোহী বাহিনী ও তাদের সমর্থক বিদেশী নেতৃবৃন্দ সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশা আল আসাদের অনুগত বাহিনীর কাজ বলে উল্লেখ করে দেশটির উপর তাঁর শাসনের সমাপ্তি দাবী করছেন।

    নিহত সাংবাদিক দুজনের মধ্যে একজন হচ্ছেন মার্কিন সানড্যে টাইমস পত্রিকার সংবাদ প্রতিনিধি ম্যারী কোলভিন এবং অপরজন ফরাসী ছবি-সাংবাদিক রেমী ওশ্লিক, যিনি বিভিন্ন দেশে সংঘাত ও যুদ্ধের ছবি তুলে বিখ্যাত ও পুরষ্কার-প্রাপ্ত হয়েছিলেন। ফ্রান্সের সরকারী মুখপাত্র নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন।

    পশ্চিমা সংবাদ-মাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, হতভাগ্য সাংবাদিক দুজন হোমসের যে-বাড়ীতে অবস্থান করছিলেন, তার উপর সরকারী বাহিনীর কামানের নিক্ষিপ্ত গোলাই তাদের নিহত হবার কারণ। তবে, প্রেসিডেন্ট আসাদ সাংবাদিক-মৃত্যুর ঘটনাকে সন্ত্রাসীদের কাণ্ড বলে দাবী করেন।

    এদিকে, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজি সাংবাদিক দুজনের হত্যার ঘটনাকে সরকারী বাহিনীর করা ‘খুন’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন এবং ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট আসাদের শাসনের বিলুপ্তি দাবী করেন। তিনি বলেন, ‘যথেষ্ট হয়েছে, আর নয়। এই শাসককে যেতেই হবে। সিরিয়াবাসী কেনো তাঁদের জীবন যাপন ও মুক্তভাবে ভবিষ্যত নির্ধারণ করতে পারবে না, তার কোনো কারণ নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘যদি সাংবাদিকেরা সেখানে না থাকতো, গণহত্যা আরও অনেক বেশি ভয়াবহ হতো।’

    ব্রিটিশ পররাষ্ট্র-মন্ত্রী উইলিয়াম হেইগ বলেছেন, ‘হোমসের মানুষের প্রতি কী করা হচ্ছে, সে-সত্য মেরী ও রেমির মৃত্যু আমাদের সামনে নিয়ে এসেছেন’। তিনি বলেন, ‘বিশ্ব-জুড়ে সরকার সমূহের দায়িত্ব হচ্ছে সিরিয়াতে আসাদ সরকারের অবর্ণনীয় সন্ত্রাসী আক্রমণে বন্ধ করার প্রচেষ্টাকে দ্বিগুণ করা।’

    বিপরীতে, সিরিয়া-কর্তৃপক্ষ বলছে, নিহত সাংবাদিক দুজন সিরিয়াতে আছেন বলে তাঁরা জ্ঞাত নন। বর্তমান পরিস্থিতিতে সিরিয়াতে অবৈধভাবে প্রবেশ-করা সকল বিদেশী সাংবাদিকে অতিসত্ত্বর তাদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য সরকারী কর্তৃপক্ষ অনুরোধ করেছে।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন