• বনি ওয়ালিদে লিবীয়দের প্রতিরোধঃ পিছু হঠেছে ন্যাটো ও আল-কায়েদা-বিদ্রোহীরা
    libya_rebels_retreat_bani_walid.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১০ সেপ্টেম্বর ২০১১, শনিবারঃ প্রায় দুই সপ্তাহ অবরোধ করে রাখার পর লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফীর শক্ত ঘাটি বানি ওয়ালিদ দখলের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে ন্যাটো, আল-কায়েদা ও বিদ্রোহীদের যৌথ বাহিনী। আজ সরকারী সেনা ও স্বেচ্ছাসেবক মিলিশিয়াদের পাল্টা-আক্রমণে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে ন্যাটো-পরিচালিত বিদ্রোহীদের স্থল-বাহিনী।

    অবরুদ্ধ বনি ওয়ালিদের অধিবাসীদেরকে আত্মসমর্পণের জন্য আজ শনিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিলো ন্যাটো সমর্থতি আল-কায়দা ও বিদ্রোহী বাহিনী। এর মাঝে তাঁদেরকে নানাভাবে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করা হয়েছে এবং মনোবল ভেঙ্গে দিতে 'গাদ্দাফী নাইজারে পালিয়ে গেছেন' বলে বিশ্বের প্রায় সমস্ত গণমাধ্যমগুলোতে প্রচার চালানো হয়েছে। মুয়াম্মার গাদ্দাফি সিরিয়ার একটি টিভি চ্যানেলে বিবৃতি দিয়ে পশ্চিমা-প্রভাবিত গণমাধ্যমগুলোর এ-দাবী নাকচ করে দেন। বানি ওয়ালিদের গোত্রগুলো দেশ বাঁচাতে গাদ্দাফির নেতৃত্বে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যাক্ত করেছে।

    স্থলে ব্যর্থ হলেও ন্যাটো শহরটির উপরে বিমান থেকে বোমা-হামলা অব্যাহত রেখেছে। ন্যাটো ও বিদ্রোহীদের রাজনৈতিক সংগঠন ন্যাশনাল ট্রানজিশনাল কাউন্সিলের যৌথ-সিদ্ধান্তে বিদ্রোহীরা বনি ওয়ালিদ থেকে পিছু হটে এসেছে বলে জানিয়েছে স্কাই নিউজও। লিবিয়া থেকে প্রাপ্ত সংবাদে জানা গেছে, প্রায় একশো বিদ্রোহী-যোদ্ধা নিহত ও অন্তত  ৫৮ জন ধৃত হয়েছেন লিবীয় বাহিনীর হাতে।

    সিএনএন জানিয়েছে, পলায়নরত বিদ্রোহীরা আশা করছে বেনগাজী ও ত্রিপোলির মতো করে বনি ওয়ালিদে প্রবেশের পথও ন্যাটো কোনো-না-কোনো ভাবে পরিষ্কার করে দেবে। পলায়মান এক বিদ্রোহীর জবানীতে সংবাদ সংস্থাটি বলছে, 'ন্যাটো, কোথায় তোমরা?'

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন