• বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল ও কমিউনিস্ট পার্টির যৌথ-আন্দোলনের ঘোষণা
    cpb_spb_joint_movement_2012.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৭ জুলাই ২০১২, শনিবারঃ  বাংলাদেশে দ্বি-দলীয় শাসনের বিপরীতে বাম ও প্রগতিশীল রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার ঘোষিত-লক্ষ্য নিয়ে যৌথ-কর্মসূচি পালনের ঘোষণা করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। গত ৩রা জুলাই ঢাকায় এক যৌথ-সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দল-দু'টি ১৫-দফা কর্মসূচি প্রকাশের মাধ্যমে এ-ঘোষণা দেয়।

    বাংলাদেশে দীর্ঘদিন ধরে পালাক্রমে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির শাসন চলছে যাকে এ-বাম দল-দু'টি  'লুটেরা ধনিক শ্রেণির দুঃশাসন' বলে চিহ্নিত করেছে। তারা মনে করছে, এ-পরিস্থিতিতে বাম-গণতান্ত্রিক দলগুলির উদ্যোগে বিকল্প শক্তি গড়ে তোলা এখন 'সময়ের দাবী', যার প্রতি সাড়া দিতেই এ-যৌথ আন্দোলনের সূচনা। সংবাদ-সম্মেলন থেকে দল-দু'টি তাদের প্রস্তাবিত 'বিকল্প কর্মসূচির' ভিত্তিতে সংগ্রাম গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে বাম-গণতান্ত্রিক বিকল্প শক্তি গড়ে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানায়।

    ঘোষণা-অনুষ্ঠানটিতে 'মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা-বিরোধী প্রগতিশীল ধর্ম-নিরপেক্ষ চেতনা এবং সাম্রাজ্যবাদ-বিরোধী স্বাধীন জাতীয় অর্থনীতি ও রাজনীতির বিকাশ ঘটানোকে' এ-যৌথ উদ্যোগের লক্ষ্য হিসেবে বর্ণনা করা হয়। পঠিত যৌথ-ঘোষণায় দাবী করা হয় যে, 'একমাত্র বামপন্থী, প্রগতিশীল ও সাম্রাজ্যবাদ ও স্বৈরতন্ত্রবিরোধী উদার গণতান্ত্রিক দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক দল, ব্যাক্তি ও গোষ্ঠীর মিলিত অবস্থানই হতে পারে জনগণের এ-বিকল্প শক্তি'।

    ১৫-দফা কর্মসূচির দফাগুলো হচ্ছে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা আলোকে সংবিধানকে আরও গণতান্ত্রিক ও গণমুখী করা, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও শাস্তি দ্রুত নিশ্চিত করা, সকল অগণতান্ত্রিক আইন বাতিল করে 'রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস' বন্ধ করা, নাগরিকদের অবৈধ সম্পত্তি রাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণে আনা, দুর্নীতি দমন,  নিত্য-প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণ, শ্রমিকের নায্য মজুরি নিশ্চিত করা, 'আমূল' ভূমি-সংস্কার, গ্যাস-বিদ্যুত-পানি-যাতায়ত-বাসস্থানের সঙ্কট দূর করা, বিনামূল্যে বৈষম্যহীন শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, জাতীয় সম্পদ জাতীয় স্বার্থে ব্যবহার, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা, নারী-পুরুষের সম-অধিকার নিশ্চিতকরণ, ক্ষুদ্র জাতিসত্তার স্বীকৃতি ও জলবায়ুর সংরক্ষণ ও পরিবর্তন মোকাবেলা করা।

    সংবাদ-সম্মেলনে সূচনা-বক্তব্য রাখের সিপিবির সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান খান এবং যৌথ-ঘোষণাটি পাঠ করেন বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান। এখাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হায়দার আকবর খান রনো, রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শুভ্রাংশু চক্রবর্তী, বজরুল রশীদ ফিরোজ, রাজেকুজ্জামান রতন-সহ আরও অনেকে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন