• বাংলাদেশে হাইকৌর্টের রায়ঃ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন 'বেআইনী ও বাতিল'
    bd_jamat_registration_void_protest.JPG

    ইউকেবেঙ্গলি - ১ অগাস্ট ২০১৩, বৃহস্পতিবারঃ  বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সক্রিয় বিরোধীতাকারী ইসলামবাদী সংগঠন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে দেয়া নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন 'অবৈধ ও বাতিল' বলে রায় দিয়েছে দেশটির উচ্চ-আদালত। ২০০৯ সালে আরেক ধর্মবাদী দল তরিকতে ফেডারেশনের দায়ের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ বৃহত্তর বেঞ্চের পক্ষে এ-রায় দিয়েছেন বিচারপতি এম মোয়াজ্জেম হোসেন।

    এর মধ্য দিয়ে এ-মুহূর্তে রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াত আইনতঃ অনিবন্ধিত একটি সংগঠনে পরিণত হলো। ফলে এ-পরিস্থিতিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন-সহ নির্বাচন কমিশনের আওতাধীন কোনো রাজনৈতিক নির্বাচনেই অংশগ্রহণ করতে পারবে না দলটি। কারণ বাংলাদেশের বর্তমান আইন অনুযায়ী কেবলমাত্র নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলগুলোই নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে।

    নির্বাচনে অংশ নিতে না-পারলেও রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতে ইসলামী বৈধ রাজনৈতিক দল হিসেবেই সক্রিয় থাকতে পারবে। তবে দলটি যেহেতু মূলধারার সংসদীয় রাজনীতি অনুসরণ করে তাই, জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে না পারলে, তাদের রাজনৈতিক ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়বে।

    জামায়াতে ইসলামী উচ্চ-আদালতের এ-রায়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে মিছিল করেছে। দলটির আইনজীবী শিশির মোহাম্মদ জানিয়েছেন তাঁরা ইতোমধ্যেই এ-রায়ের বিরুদ্ধে এ্যাপীল করেছেন।

    নির্বাচন কমিশনার মোঃ শাহনেওয়াজ বলেন, "আদালতের আদেশ শিরোধার্য"। রায়ের কপি নির্বাচন কমিশনে পৌঁছুলেই পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

    ২০০৮ সালে সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন প্রক্রিয়া চালু হওয়ার পর অপর ৩৭টি রাজনৈতিক দলের সাথে জামায়াতকেও নিবন্ধিত করে নির্বাচন কমিশন।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন