• বিদেশি ড্রৌন ইসরায়েলের আকাশেঃ মধ্য-প্রাচ্যে ডিজিট্যাল-যুদ্ধের শুরু?
    israel_foreign_drone_intrusion.JPG

    ইউকেবেঙ্গলি - ৭ অক্টোবর ২০১২, রোববারঃ গতকাল ভোরে দক্ষিণ-ইসরায়েলের আকাশে একটি বিদেশি ড্রৌন বা চালকবিহীন আকাশ-যান ভ্রমণ করেছে। দেশটির সেনা-সংস্থা আধ-ঘন্টাব্যাপী ড্রৌনটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অবশেষে বিমানাক্রমণের মাধ্যমে সেটিকে ভূ-পাতিত করে। ইসরায়েলী নিরাপত্তা সংস্থা এক সংবাদ-বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে এ-খবর।

    স্থানীয় সময় ভোর ১০টায় হেলিকপ্টার আকৃতির একটি ড্রৌনটি ইসয়ায়েলী বিমানের গোলায় ছিন্ন-ভিন্ন হেব্রোন পর্বতের কাছে ইয়াতির বনে পতিত হয়। দেশটিতে প্রবেশের পর ড্রৌনটি ইসরায়েলের নিভাতিম বিমান-ঘাঁটি-সহ দক্ষিণাঞ্চলীয় অনেকগুলো সামরিক ও বেসামরিক স্থাপনা সম্বন্ধে তথ্য সংগ্রহ করে থাকবে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

    ইসরায়েলী সামরিক ম্যাগাজিন দেবকা জানিয়েছে, নিরাপত্তারক্ষী বাহিনী ড্রৌনটির অস্তিত্ব নিশ্চিত হওয়ার সাথে-সাথে প্রতিরক্ষা-মন্ত্রী এহুদ বারাকের কাছে জানতে চায় 'এটিকে নিয়ে কী করা হবে', যিনি সিদ্ধান্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর দ্বারস্থ হন। প্রথমে স্থির করা হয়েছিল যে, ডিজিট্যাল মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে ড্রৌনটিকে অক্ষত অবস্থায় মাটিতে নামিয়ে আনা হবে - যেভাবে যুক্তরাষ্ট্রের একটি ড্রৌন ইরানের হাতে ধৃত হয়েছিল। কর্মকর্তাদের আশা ছিল, এটি কোন দেশ থেকে এসেছে এবং কীভাবে কাজ করে, এভাবে তার বিস্তারিত উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

    টানা প্রায় ৩০ মিনিট ইসরায়েল ও ড্রৌনটির দূর-নিয়ন্ত্রকদের মধ্যে সাইবার-লড়াইয়ের পরও নিয়ন্ত্রণ কব্জা করতে না পেয়ে ইসরায়েল সিদ্ধান্ত নেয় এটিকে আঘাত করার। কেননা, যতোক্ষণই এটি ইসরায়েলের আকাশে থাকবে ততোক্ষণ প্রতিমুহূর্তেই তথ্য সংগ্রহ করে 'উৎস-দেশে' পাঠাতে থাকবে।  ইসরায়েল মনে করছে ড্রৌনটি ইরানের তৈরি তবে এটি ইরান থেকে আসেনি, লেবানন থেকে উড়ে এসে ভূমধ্য সাগর হয়ে ইসরায়েলে প্রবেশ করেছে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন