• ব্রিটেইনের পক্ষে গোয়েন্দাগিরির অভিযোগে 'গুপ্তচর' আটক ইরানে
    uk_mi6_building.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৪ ডিসেম্বর ২০১৩, শনিবারঃ ইরান-ব্রিটেইন সম্পর্কোন্নয়নের প্রচেষ্টায় সাম্প্রতিক অগ্রগতির মধ্যে ব্রিটেইনের গোয়েন্দা সংস্থা এমআই-৬ এর পক্ষে কাজ করার সন্দেহে ইরানে গ্রেফতারিত হয়েছেন এক ব্যক্তি। দেশটির বার্তা-সংস্থা ফার্স নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে এ-সংবাদ।

    ফার্স নিউজের বরাতে ইরানের কেরমান অঞ্চলের বিপ্লবী আদালতের প্রধান দাদখোদা সালারির উদ্ধৃতি দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, সন্দেহিত গুপ্তচর গত কয়েক মাসে ইরানের ভিতর ও বাইরে থেকে অন্ততঃ ১১ বার এমআই-৬-এর সাথে যোগাযোগ করেছে। সালার আরও জানান, গ্রেফতারিত ব্যক্তি দোষ স্বীকার করেছেন এবং এখন তার বিচারকার্য চলছে।

    লণ্ডনস্থিত ব্রিটেইনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এর একজন মুখপাত্রী প্রকাশিত সংবাদের প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, "গোয়েন্দা-সম্পর্কিত ব্যাপারে আমরা মন্তব্য করি না।"

    ব্রিটেইন ও ইরানের কূটনৈতিক সম্পর্কে অতি প্রাচীন। ত্রয়োদশ শতকে ইংল্যাণ্ডের রাজা প্রথম এডোয়ার্ড ইরানের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপণের লক্ষ্যে ইংলিশ নাইট জিয়োফ্রে অফ ল্যাঙ্‌লিকে পাঠান। ১৯৭৯ সালে ইরানে ইসলামী বিপ্লব সঙ্ঘটিত হলে দুই দেশের মধ্যে কুটনৈতিক সম্পর্ক বন্ধ হয়ে যায়, যা ১৯৮৮ সালে পুনঃস্থাপিত হয়।

    ২০১১ সালের ২৮শে নভেম্বর ব্রিটেইন ইরানের উপর নতুন অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করলে উভয় দেশের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটতে শুরু করে। পরের দিন তেহরানের একদল ছাত্র ব্রিটিশ দূতাবাসে ঢুকে পড়ে তোলপাড় করে - এর ফলাফলস্বরূপ উভয় দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক আবারও ভেঙ্গে পড়ে। এ-বছরের অক্টোবরে ইরান ও ব্রিটেইন কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনঃস্থাপনে সম্মত হয়।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন