• ভারতের ইউপিতে নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রীর মূর্তি ঢাকার নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের
    mayawati_statue.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৭ জানুয়ারী ২০১২, শনিবারঃ  ভারতের উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী জীবিত অবস্থাতেই তাঁর মূর্তি গড়িয়ে এক সময় যে-বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন, রাজ্যের নির্বাচনকে সামনে রেখে আজ শনিবার সে-মূর্তি ঢেকে দেবার নির্দেশ দিয়েছে দেশের নির্বাচন কমিশন।

    ভারতের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণতম রাজ্য বলে বিবেচিত উত্তর প্রদেশে এ্যাসেম্বলীর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে মোট সাত পর্যায়ে, যা শুরু হবে ৪ ফেব্রুয়ারী থেকে। বর্তমানে যে-দলটি রাজ্যের ক্ষমতায় আছে, তা হচ্ছে বহুজন সমাজ দল, যার নেত্রী মায়াবতী ও নির্বাচনী প্রতীক হাতি। মায়াবতীর নিজের মূর্তি ছাড়াও দেশের পার্কে-পার্কে তৈরী করা হয়েছে হাতির মূর্তি। নির্বাচন কমিশন ওই হাতিগুলোর মূর্তিও ঢাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

    রাজ্যের বিরোধী দলের পক্ষ থেকে যখন অভিযোগ করে বলা হলো, ঐ নারী ও হস্তি উভয় প্রকার মূর্তিই বহুজন সমাজ দলকে নির্বাচনে অনুচিত সুবিধা দেবে, তখন নির্বাচন কমিশন ঔচিত্য নিশ্চিত করতে ঢেকে দিতে বললো আরও দুজনের মূর্তি, আর তাঁরা হচ্ছেন কংগ্রেস দলীয় প্রয়াত দুই বংশানুক্রমিক প্রধানমন্ত্রী - মাতা ইন্দিরা গান্ধী ও পুত্র রাজিব গান্ধী। এমনকি, ক্যালেণ্ডারে ছাপা দেশের প্রধানমন্ত্রীর ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছবিও ঢেকে রাখার নির্দেশ দিয়েছে প্রধান নির্বাচন কমিশন। 

    অবশ্য, ‘মহাত্মা’ নামে সমধিক পরিচিত মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর মূর্তি ঢাকা পড়বে না বলে স্পষ্ট করে দেয়া হয়েছে। যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে, মোহনদাস গান্ধী মায়বতীর মতো নির্বাচনও করছেন না কিংবা ইন্দিরা ও রাজিব গান্ধীর মতো কোনো দলেরও অন্তর্ভুক্ত নন।

    এক সংবাদ-সম্মেলনে আজ প্রধান নির্বাচন কমিশনার ডঃ শাহাবুদ্দিন ইয়াকুব কুরাইশি জানান, এ-সিদ্ধান্ত সকল প্রার্থীর জন্য একটি ‘লেভেল প্লেয়িং ফীল্ড’ নিশ্চিত করবে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন