• ভারতের রাজধানী এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত বিহারেঃ ৫ মৃত ২৩ আহত
    india_train_derailed_in_bihar.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৫ জুন ২০১৪, বুধবারঃ ভারতের সুপরিচিত রাজধানী এক্সপ্রেসের একটি যাত্রীবাহী রেইলগাড়ী গতরাতে লাইনচ্যুত হয়েছে। দিল্লি থেকে রওয়ানা হয়ে আসামের উদ্দেশ্যে যাবার সময় বিহারের ছাপরায় ঘটা এ-দূর্ঘটনায় ৫ জন যাত্রী মারা গিয়েছে; আহত হয়েছে অন্ততঃ ২৩ জন। দুর্ঘটনাটির সঠিক কারণ এখনও জানা যায়নি, যদিও কোন-কোনও সংবাদ-মাধ্যমে মাওবাদীদেরকে সন্দেহ করে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। খবর জানিয়েছে এএফপি, পিটিআই, ইয়াহূ নিউজ ও আনন্দবাজার পত্রিকা।

    মঙ্গলবার রাত সোয়া দু'টোর দিকে বিহারের সরন জেলার ছাপরা স্টেশন পার হওয়ার কিছুক্ষণ পর রেলগাড়ীটি বিকট শব্দ ও ঝাকুনি দিয়ে থেমে যায়। ততোক্ষণে ১২টি কামরা লাইনচ্যুত হয়ে গিয়েছে। যাত্রীরাই প্রাথমিক উদ্ধারকার্য শুরু করে আহতদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠান। গুরুতরভাবে আহত কয়েকজনকে পাটনা মেডিক্যাল কজেজে পাঠানো হয়েছে। রেইলমন্ত্রী সদানন্দ গৌড়া এ-দূর্ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে নিহতদের জন্য মাথাপিছু ২লাখ রুপি দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

    এ-ঘটনার কারণ কী তা নির্দিষ্ট করে নিশ্চিত হওয়া না গেলেও বিজেপির স্থানীয় সাংসদ রাজীবপ্রতাপ রুডি একে নাশকতা বলে মনে করেছেন। তার সাথে সুর মিলিয়ে রেইল বৌর্ডের চেয়ারম্যান অরুণেন্দু কুমার বলেছেন, "প্রাথমিক ভাবে অন্তর্ঘাত বলেই মনে করা হচ্ছে।" তাঁকে উদ্ধৃত করে সংবাদ-সংস্থা এশিয়ান নিউজ ইণ্টারন্যাশনালের ট্যুইটারে প্রকাশিত বার্তা থেকে মাওবাদীদের দিকে সন্দেহ ছড়াতে শুরু করে।

    কিন্তু তাঁদের সাথে দ্বিমত পোষণ করছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জিতনরাম মঁজি ও স্থানীয় পুলিসের ডিজি পি কে ঠাকুর। একই মনোভাব দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহেরও।

    নিরাপত্তাবাহিনীর নির্যাতনের প্রতিবাদ করে গতকাল হরতাল ডেকেছিলো মাওবাদীরা। একই দিন সেখানে রেইল-দূর্ঘটনা ঘটায় তাদের দিকে সন্দেহের তীর তাক করছেন কেউ কেউ। তবে মুখ্যমন্ত্রী মঁজি স্পষ্ট করে বলেছেন, "প্রাথমিক ভাবে মাওবাদী যোগের কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। রেলের ভুলেই এ দিনের দুর্ঘটনা ঘটেছে।" স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ বলেছেন, ঘটনায় মাওবাদী যোগ আছে কি না, তা বলার সময় এখনও আসেনি।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন