• ভারত থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানী করবে বাংলাদেশ
    india_bangladesh_electricity_export_deal_signed.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১ মার্চ ২০১২, বুধবারঃ  ভারতের সরকার নিয়ন্ত্রিত ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার কৌম্পানী (এনটিপিসি) বাংলাদেশে বিদ্যুৎ রপ্তানী করবে। এ-লক্ষ্যে সংস্থাটি একটি চুক্তি সাক্ষর করেছে বাংলাদেশের পাওয়ার ডিভালপমেন্ট বৌর্ডের (বিপিডিবি) সাথে। 

    গত ২৮শে ফেব্রুয়ারী ভারতের নয়া দিল্লিতে সাক্ষরিত এ-চুক্তির অধীনে ২৫০ মেগাওয়াট ও ভিন্ন ক্রয়-চুক্তির মাধ্যমে ভারতের বিদ্যুত-বাজার থেকে আরও ২৫০মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কিনবে বাংলাদেশ। এনটিপিসির কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে দ্য হিন্দু বিজনেস লাইন জানিয়েছে ইতোমধ্যেই এ-সম্পর্কে আলোচনা শুরু হয়েছে।

    ভারতের পূর্ব-সীমান্ত ও বাংলাদেশের পশ্চিম-সীমান্তের মধ্যে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য একটি ৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন এইচভিডিসি ব্যাক-টু-ব্যাক এসিন্‌ক্রোনাস সংযোগের মাধ্যমে একটি বৈদ্যুতিক গ্রীড তৈরি করা হবে। পশ্চিমবঙ্গের বহরামপুর ও বাংলাদেশের ভেড়ামারার মধ্যে আন্তঃসীমান্ত বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য ৪০০ কিলোভৌল্টের একটি ডি/সি বিদ্যুৎ সঞ্চালক লাইন নির্মিত হবে যা নিয়ন্ত্রণের জন্য বহরামপুরে একটি সুইচিং স্টেশন বসানো হবে।

    ২০১৩ সালের জুলাই মাসের মধ্যে উভয় দেশের মধ্যে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ সম্পন্ন হবে। প্রকল্প শুরু থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশের পরামর্শকের দায়ীত্ব পালন করবে ভারতের রাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত বিদ্যুৎ সংস্থা 'পাওয়ার গ্রীড কর্পৌরেশন অফ ইণ্ডিয়া'।

    বাংলাদেশের বিদ্যুৎ সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেছেন, 'ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের মূল্য ২.৮০ ভারতীয় রুপি ধার্য্য করা হয়েছে'। তবে পিডিবির কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ঢাকা থেকে প্রকাশিত ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার জানিয়েছে, 'এর সাথে প্রতি ইউনিটের জন্য রক্ষনাবেক্ষন-ব্যয় হিসেবে আরও ২০ পয়সা করে যোগ করতে হতে পারে'। অর্থাৎ আজকের মুদ্রা-বিনিময় হার অনুযায়ী প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম পড়বে প্রায় ৪ টাকা ৮৫ পয়সা। মূল্য পরিশোধের ক্ষেত্রে অবশ্য টাকা বা রুপি নয়, মার্কিন ডলারেই তা করতে হবে।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন