• ভারত -বাংলাদেশ 'ফলপ্রসূ' আলোচনাঃ তিস্তা-চুক্তি সাক্ষর ও পদ্মা-সেতুতে অর্থায়নের সম্ভবনা
    india_bangladesh.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৩, সোমবারঃ  গতকাল বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়, সে-দেশের বিদেশ-মন্ত্রণালয়ের সচিবের সাথে অনুষ্ঠিত এক বৈঠককে 'অত্যন্ত ফলপ্রসূ' বলে বর্ণনা করেছেন ভারতের বিদেশ-সচিব রঞ্জন মাথাই। তিস্তা জল-বণ্টন, বাংলাদেশের ভিতর দিয়ে ট্র্যানজিট সুবিধা, ছিটমহল বিনিময়-সহ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের প্রায় সকল বিষয়ই স্থান পায় দুই-সচিবের এ বৈঠক - জানিয়েছে বিভিন্ন সংবাদ-মাধ্যম।

    তবে এ-সকল বিষয় ছাড়াও তাঁরা কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ পদ্মা-সেতু নির্মাণে ভারতের অর্থায়নের সম্ভাব্যতার প্রসঙ্গেও আলোচনা করেছেন। রঞ্জনের উদ্ধৃতি দিয়ে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে যে, 'ভারতের কাছ থেকে প্রাপ্ত ১০০ কোটি ডলার ঋণের ২ কোটি বাংলাদেশ চাইলে পদ্মা-সেতু নির্মাণে খরচ করতে পারবে'। 

    উল্লিখিত বৈঠকে ভারতের ফরেন সার্ভিস ইন্‌স্টিটিউট ও বাংলাদেশের ফরেন সার্ভিস এ্যাকাডেমি পারস্পরিক সহযোগিতার একটি সমঝোতা-স্মারক সাক্ষর করেছে। এতে নিজ-নিজ দেশের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন রঞ্জন মাথাই ও বাংলাদেশের বিদেশ-সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক।

    রঞ্জন মাথাই সাংবাদিকদের আরও জানান যে, দ্রুত তিস্তা জল-বণ্টন চুক্তি সাক্ষর করতে ভারতের সরকার বদ্ধ-পরিকর। বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের মেয়াদকাল অর্থাৎ এ-বছরের মধ্যেই চুক্তিটি হবে কি-না জানতে চাইলে মাথাই বলেন, 'আমি নির্দিষ্ট করে তারিখ বলতে চাই না, তবে এ-বছরের শেষ কেনো, তার আগেও হতে পারে'।

    আগামী সপ্তায় ভারতের বিদেশ-মন্ত্রী সালমান খুরশিদের বাংলাদেশ সফর-সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। তাঁর সে-সফরের পূর্ব-প্রস্তুতির অংশ হিসেবে রঞ্জন মাথাই গত শনিবার থেকে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তিনি ইতিমধ্যে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্র-মন্ত্রী ডা. দীপু মণি, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এবং স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ণ বিষয়ক মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সাথে সাক্ষাত করেছেন।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন