• ভূমধ্য সাগরে ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণঃ সাথে ছিলো যুক্তরাষ্ট্র
    israel_fire_missile_in_sea.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৩, মঙ্গলবারঃ  সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে পশ্চিমা সামরিক হামলার সম্ভবনায় উত্তেজিত মধ্যপ্রাচ্যে আজ ভোরে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে চাঞ্চল্য বাড়িয়েছে ইসয়ারেল। আজ ভোরে রাশিয়ার জানায় তাদের র‍্যাডার-ব্যবস্থা ভূমধ্য সাগরে ক্ষেপাণাস্ত্র উৎক্ষেপণ শনাক্ত করেছে। ইসরায়েল তৎক্ষণাৎ  জানায় তাদের র‍্যাডারে তেমন কিছু ধরা পড়েনি, তবে কয়েক ঘণ্টা পরে দেশটি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেয়, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যৌথভাবে একটি মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে।

    আজ রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, স্থানীয় সময় ভোর সোয়া ন'টায় (ব্রিটেইন সময় ভোর সোয়া ছ'টায়)  মধ্য-ভূমধ্য সাগর থেকে পূর্ব-ভূমধ্য সাগরের দিকে অন্ততঃ দু'টো ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছে। জবাবে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, এমন কোন উৎক্ষেপণের সংবাদ তাদের গোচরে আসেনি। যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের মিত্র ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র ও ইতালিও একই কথা বলে।

    তবে কয়েক ঘণ্টা পরই ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দাবি করে, "যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যৌথভাবে [ইসরায়েল] সফলভাবে 'স্প্যারৌ' ক্ষেপণাস্ত্রের নতুন সংস্করণ উৎক্ষেপণ করেছে"। মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ইসরায়েলের মিসাইল ডিফেন্স অর্গানাইসেশন ও যুক্তরাষ্ট্রের মিসাইল ডিফেন্স এজেন্সির কর্মকর্তারা দূর-নিয়ন্ত্রিত স্প্যারৌ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা-প্রক্রিয়া পরিচালনা করেন।

    সিরিয়ার একজন মুখপাত্র লেবাননের আল-মানার টিভিকে জানান, সিরিয়ার অভ্যন্তরে কোনো ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করেনি। দামেস্ক থেকে রাশিয়ার দূতাবাস এ-তথ্য নিশ্চিত করেছে।

    গত রোববার রাশিয়া ভূমধ্য সাগরে একটি গোয়েন্দা জাহাজ পাঠিয়েছে। এর আগেই দু'টো রাশিয়ান যুদ্ধ জাহাজ সিরিয়া উপকূলের দিকে রওয়ানা হয়ে গিয়েছিলো।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন