• যুক্তরাষ্ট্রের সন্দেহঃ লাদেন-কাণ্ডে পতিত কপ্টার চীনকে দেখিয়েছে পাকিস্তান
    US-Copter-in-Pakistan.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি, ১৫ অগাস্ট ২০১১, সোমবারঃ পাকিস্তানে কথিত লাদেন-হত্যার মার্কিন-অভিযানে ফেলে-যাওয়া একটি বিকল হেলিকপ্টারের ছবি তুলতে দিয়েছে চীনকে পাকিস্তান, আর সে-ছবি থেকে বেইজিং প্রযুক্তি নকল করবে আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে ওয়াশিংটন। গোটা বিষয়টি জটিলতর করে তুলেছে পাক-মার্কিন অবনতিশীল সম্পর্ককে।

    গতকাল রোববার ব্রিটেইন থেকে প্রকাশিত ফাইন্যানশিয়াল টাইমস্‌ জানায়, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাদের সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে মনে করছে যে, পাকিস্তানের নিমন্ত্রণে চীনা প্রকৌশলীরা এ্যাবোটাবাদের কথিত বিন-লাদেনের কম্পাউন্ডে এসে ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের বিস্তারিত ছবি তুলে নিয়ে গিয়েছে।

    উল্লেখ্য, গত মে মাসের শুরুতে পাকিস্তানের অভ্যন্তরে দেশটির রেইডার পদ্ধতিকে ফাঁকি দিয়ে মার্কিন বিশেষ বাহিনী ন্যাভী সীলস টীম নজির-বিহীন অভিযান পরিচালনা করে সামরিক শহর এ্যাবোটাবাদে আল-কায়েদা নেতা বিন-লাদেন ও পুত্রকে হত্যা করেছে বলে দাবী করে।

    সে-দিন সেখানে সত্যিই বিন-লাদেন নিহত হয়েছেন কি-না তা নিয়ে বিপুল সন্দেহ ও বিতর্ক থাকলেও খোদ হামলার সত্যতার বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। রেইডারে ধরা না-পড়ার মতো বিশেষ প্রযুক্তি-সমৃদ্ধ ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টার ব্যবহার করার কারণেই মূলতঃ মার্কিনীদের পক্ষে পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীকে ফাঁকি দেয়া সম্ভব হয়েছে এবং বিষয়টি দু-দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

    মার্কিন গোয়েন্দাদের সন্দেহ সত্য প্রমাণিত হলে পাক-মার্কিন সম্পর্কের আরও অবনতি হবে বলে ধারণ করা হচ্ছে।

    তবে মার্কিন সরকারী কর্মকর্তারা সতর্কতা জানিয়ে বলেছেন যে,  পাকিস্তানের নিমন্ত্রণ বা অনুমোদন চীনা প্রকৌশলীদের এ্যাবোটাবাদ পরিদর্শনে গিয়েছিলো কি-না সে-বিষয়ে নিশ্চিত প্রামাণ তাঁদের হাতে আসেনি। তাঁরা জানান, পাকিস্তানী কর্মকর্তারা সুনির্দিষ্টভাবে অস্বীকার করেন যে মার্কিন হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ বিদেশী কাউকেই দেখানো হয়নি এবং প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা সহকারেই তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই ফেরত পাঠানো হয়েছে।

    তবে গোয়েন্দা তথ্য বিষয়ে অবহিত কিন্তু নাম অনুল্লিখিত ব্যক্তি-বিশেষের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানাচ্ছে, মার্কিন সন্দেহ মূলতঃ পাকিস্তানী কর্মকর্তাদের আলোচনায় আঁড়ি-পাতা থেকে প্রাপ্ত তথ্যের উপর ভিত্তি-করা, যেখানে চীনাদেরকে নিমন্ত্রণ করার কথা বলা হয়েছে। সূত্রটি জানায়, গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ‘নিশ্চিত’ যে চীনা প্রোকৌশলীরা হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষের ছবি তুলতে এবং এক টুকরো নমুনা হস্তগত করতে সক্ষম হয়েছেন।

    মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আশঙ্কা, প্রাপ্ত তথ্য ও নমুনার উপর অনুসন্ধান ও গবেষণা চালিয়ে চীন সহজেই তার প্রযুক্তি নকল করে ফেলবে।

    উল্লেখ্য, পাকিস্তানের অভ্যন্তরে বিপুল সংখ্যক চীনা প্রকৌশলী সামরিক ঘাঁটিতে কর্মরত আছেন। দেশটির সামরিক কর্মকর্তারা এটিও জানিয়েছেন যে, চীনা নৌবাহিনী পাকিস্তানের উপকূল রেখায় তাদের ঘাঁটি প্রতিষ্ঠা করবে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন