• রাসায়নিক অস্ত্রের তালিকা দিয়েছে সিরিয়াঃ জিনিভা শান্তি-বৈঠকে অস্ত্রবিরতি প্রস্তাবের সম্ভবনা আসাদের
    syria_dpt_pm_qadri_jamil.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৩, শুক্রবারঃ  সিরিয়ার রাসায়নিক-অস্ত্র মজুদের একটি তালিকা আন্তর্জাতিক সংস্থার কাছে হস্তান্তর করেছে ক্ষমতাসীন বাশার আল-আসাদের সরকার। বিদ্রোহ-কবলিত দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের হামলা এড়াতে গত ১৪ সেপ্টেম্বর রুশ-মার্কিন যে-সমঝোতা হয় তা অধীনে নির্ধারিত ৭ দিনের মধ্যে এ-তালিকা দেয়া হলো।

    রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধের আন্তর্জাতিক সংস্থা অর্গানাইজেশন ফর প্রোহিবিশন অফ কেমিক্যাল উইপনস (ওপিসিডব্লিউ)-এর কাছে আজ সিরিয়ার সরকার রাসায়নিক অস্ত্র ও বিষাক্ত গ্যাসের মজুদের বিস্তারিত বিবরণ উল্লেখ করে একটি দলিল পাঠিয়েছে। সংস্থাটি বলেছে তারা এটি নিরীক্ষা করে দেখছে তা রুশ-মার্কিন সমঝোতার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ কি-না।

    এদিকে সিরিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী কাদরি জামিল ব্রিটেইনের দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকার সাথে এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, "[সিরিয়ার] গৃহযুদ্ধ অচলাবস্থায় পৌঁছেছে"। অর্থাৎ কোনো পক্ষই নিশ্চিত বিজয় অর্জনের মতো অবস্থায় নেই। গৃহযুদ্ধে দেশটির অর্থনীতির ভয়াবহ ক্ষতির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, "প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়েছে"।

    সাক্ষাতকারে জামিল জানান, "যদি প্রস্তাবিত জিনিভা শান্তি-আলোচনা পুনরুজ্জিবীত করা হয় তবে সরকার যুদ্ধ-বিরতির প্রস্তাব দিতে পারে যা নিরপেক্ষ বা মিত্র দেশের সৈন্যদের দ্বারা পর্যবেক্ষিত হতে পারে"। এতে দেশটির সংঘাতময় সঙ্কটের শান্তিপূর্ণ সমাধানের পথ উন্মুক্ত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

    ২০১১ সালে গণ-অসন্তোষের পর সিরিয়ায় যে-রাজনৈতিক পরিবর্তনের সূচনা করে সরকার সে-ব্যাপারে সকল পক্ষকে স্মরণ করিয়ে দেন জামিল। সে-সময়ে সরকারের নেয়া কর্মসূচির মধ্যে অন্যতম ছিলো, বাথ পার্টির একচ্ছত্র শাসনের বদলে শাসন প্রক্রিয়ার বহুদলকে অন্তর্ভূক্ত-করণ, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া গতিশীল করতে সংবিধান পরিবর্তন এবং গণভৌটের মাধ্যমে সে-সংবিধানে প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি। উপ-প্রধানমন্ত্রী কাদরি জামিল নিজেও সেক্যুলার সমাজতান্ত্রিক রাজনীতিবিদ যার পার্টি ২০১১ সালে আসাদ-বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নেয়।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন