• রুশ সীমান্তে ন্যাটোর সৈন্য মোতায়েনের ঘোষণাঃ যুদ্ধপ্রস্তুতি যাচাই করছে মস্কৌ
    nato-russia.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৪ জুন ২০১৬, মঙ্গলবারঃ রাশিয়ার সীমান্তবর্তী এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া ও পৌল্যাণ্ডে চার ব্যাটালিয়ন সৈন্য মোতায়েন করবে ন্যাটো। আজ আমেরিকা ও ইউরোপের এই সামরিক সংঘটির সদস্য রাষ্ট্রসমূহের প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের এক সভায় এ-সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

    ন্যাটোভুক্ত চার জাতির সৈন্যের সমন্বয়ে গড়ে তোলা হবে এই ব্যাটালিয়নগুলো - ব্রিটেইন, জার্মানী, যুক্তরাষ্ট্র এবং সম্ভবত কানাডা। অবশ্য রয়টার্স জানিয়েছে, কানাডার অংশগ্রহণ এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করা হয়নি। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা সচিব মাইকেল ফ্যালোন বলেছেন যে, পৌল্যাণ্ড ও বাল্টিক অঞ্চলের নতুন ব্যাটালয়নের নেতৃত্ব দিতে যুক্তরাজ্য ৭০০ সৈন্য পাঠাবে।

    এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেণ্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার সামরিক বাহিনীর সকল শাখাকে তৎক্ষণাৎ তাদের যুদ্ধপ্রস্তুতি পরীক্ষা করার নির্দেশ দিয়েছেন। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে যে আজই এই পরীক্ষা শুরু হয়েছে এবং তা চলবে আগামী ২২ তারিখ পর্যন্ত।

    রুশ প্রেসিডেণ্টের প্রেস সেক্রেট্যারি দিমিত্রি পেস্কোভ বলেছেন, তাঁর দেশের সামরিক বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ন্যাটোর কার্যকলাপের উপরে ঘনিষ্ঠ দৃষ্টি রাখছে।

    ১৯৯১ সালে সোভয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে রাশান ফেডারেশন তৈরি হওয়ার সময় যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো যে ন্যাটো পূবমুখো বাড়বে না, অর্থাৎ রাশিয়ার নিকটবর্তী দেশগুলোকে সদস্যপদ দেবে না। মস্কৌতে নিযুক্ত তৎকালীন মার্কিন রাষ্ট্রদূত জ্যাক ম্যাটলক নিশ্চিত করেছেন এ-তথ্য। তবে তিনি য়ারও বলেন যে, এ-বোঝাপড়া আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক ছিলো না।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন