• লক্ষ-লোকের সমাবেশে গাদ্দাফিঃ লিবিয়ার জনতা এ-লড়াই ইউরোপে নিয়ে যেতে সক্ষম
    Gaddafi-rally.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি, ২ জুলাই ২০০১, শনিবারঃ লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির গ্রীন স্কোয়ারে লক্ষ লক্ষ মানুষ সমবেত হয়ে ন্যাটোর অব্যাহত বোমা-হামলার শিকার হওয়া দেশটির নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফির প্রতি তাদের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছে।

    গাদ্দাফি ন্যাটো তথা আমেরিকা-ইউরোপ জোটকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘লিবিয়ার জনতা চাইলে এ-যুদ্ধ নিয়ে যেতে পারে ইউরোপে, আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করতে পারে তাদের আবাসিক বাড়ি-ঘর, কর্মস্থল, পরিবার আর শিশুদেরকে, ঠিক যেভাবে ন্যাটো আমাদের বাড়ী-ঘর, কর্মস্থল, পরিবার আর শিশুদেরকে আক্রমণের 'আইন-সঙ্গত' লক্ষবস্তুতে পরিণত করেছে।’

    গাদ্দাফি বলেন, ‘দাঁতের বদলে দাঁত,  চোখের বদলে চোখ। ইউরোপ বেশি দূরে নয়, লিবিয়ার জনতা চাইলেই সেখানে ঝাপিয়ে পড়তে পারে মৌমাছি আর পঙ্গপালের মতো। কিন্তু না, আমরা তা চাই না। আমরা চাই ন্যাটো ফিরে যাক ব্যারাকে, ভয়াবহ কিছু ঘটে যাবার আগেই।’

    এ-সমাবেশে উৎফুল্ল নারী-পুরুষ-যুবা-বৃদ্ধ-শিশুকে নেচে গেয়ে গাদ্দাফির সমর্থনে স্লোগান দিতে দেখা গেছে। তারা লিবিয়ার প্রতীক ও জাতীয় পতাকা-সদৃশ ৪.৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সবুজ-ব্যানার বহন করে। গ্রীন স্কোয়ার ছাড়িয়ে সংলগ্ন সড়ক-সমূহেও উপচে পড়ে গাদ্দাফি-সমর্থকদের ভীড়।

    উপস্থিত লক্ষ-জনতাকে উদ্দেশ্য করে গাদ্দাফি বলেন, 'আপনারা খালি হাতে মার্চ করে যান ন্যাটো-সমর্থিত বিদ্রোহীদের কাছে অবরুদ্ধ শহরগুলোতে। বিদ্রোহীদেরকে নিরস্ত্র করে সেখানকার নির্যাতিত মানুষকে মুক্ত করুন।'

    বিদ্রোহীদেরকে বিশ্বাসঘাতক আখ্যা দিয়ে তিনি জনতার উদ্দেশ্যে আরও বলেন, 'আপনারা চাইলে তাদেরকে ক্ষমা করে দিতে পারেন কিংবা না-ও পারেন - সিদ্ধান্ত আপনাদের।'

    আক্রমণরত ন্যাটো-দেশগুলোর প্রধানদের সম্বোধন করে গাদ্দাফি বলেন, 'টেলিভিশন খুলে দেখুন আপনারা, কতো লক্ষ লিবিয় ন্যাটোর হামলার বিরোধিতা করছে।'

    তিনি বলেন, 'লিবিয়ার জনগণ আজ ইতিহাস গড়লো, ন্যাটোর বোমাবর্ষণ উপেক্ষা করে সাড়ে চার কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা বহন করলো, ন্যাটোর বোমা, ক্ষেপণাস্ত্র আর যুদ্ধ-বিমানকে পরাজিত করলো।'

    এ-ভাষণের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারী ক্লিন্টন গাদ্দাফিকে 'হুমকি না দিয়ে ক্ষমতা থেকে বিদায় নিতে' বলেছেন। ব্রিটেইন, ফ্রান্স বা ইতালি থেকে এখন পর্যন্ত কোনো আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন