• শতো বছরের মধ্যে বৃহত্তম ধর্মঘট দেখবে ব্রিটেইনঃ হুমকি দিলেন ইউনিয়নের নেতা
    Unison-GS-Prentis.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি, ১৮ জুন, শনিবারঃ  পাবলিক সেক্টর কর্মচারীদের সর্ববৃহৎ ট্রেইড ইউনিয়ন ইউনিসনের সাধারণ সম্পাদক ডেইভ প্রেন্টিস ঘোষণা করেছে যে, যতোক্ষণ না পর্যন্ত সরকার তার বিতর্কিত পেনশন পরিবর্তনের পরিকল্পনা ত্যাগ করছে, ততোক্ষণ পর্যন্ত তিনি ধর্মঘট-আন্দোলনে পিছু হঠবেন না এবং সে ধর্মঘট হবে এমন ধর্মঘট, যা ১৯২৬ সালের সাধারণ ধর্মঘটের পর এদেশ আর দেখেনি।

    ধর্মঘটের চরিত্র ‘রৌলিং’ হবে বলে উল্লেখ করে ডেইভ প্রেন্টিস জানান, রাষ্ট্র কর্তৃক নিয়োগিত ১.৪ মিলিয়ন তথা ১৪ লক্ষ কর্মচারীর রৌলিং স্ট্রাইক (ঘুর্ণণ-পদ্ধতিতে লাগাতার ধর্মঘট) একের পর এক এলাকায় এবং একটি সেক্টরের পর আরেকটি সেক্টরে দৈনিক ভিত্তিতে জন-পরিষেবাকে স্তব্ধ করে দিবে।

    পাবলিক সেক্টরে মুদ্রাস্ফীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে বেতন বৃদ্ধির পরিবর্তে বেতন হিমায়িত করে রাখার বিরুদ্ধে মানুষের রাগ বাড়ছে এবং সংঘর্ষ আগামীতে আরও তীব্র হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সাধারণ ধর্মঘটের (১৯২৬ সালের) পর এটি হবে বৃহত্তম ধর্মঘট। এটি খনিকারদের (ব্যর্থ) ধর্মঘটের মতো হবে না। আমরা বিজয়ী হবো।’

    উল্লেখ্য, পাবলিক সেক্টরের পেনশন নীতিতে সরকার যে পরিবর্তন প্রস্তাব এনেছে, তার প্রতি ইউনিয়নগুলো ঘোরতর আপত্তি আছে। কিন্তু এ-নিয়ে দীর্ঘ-মেয়াদী আলোচনা সমাপ্ত না হবার আগেই সরকার একটির পর একটি যে ঘোষণা দিয়ে যাচ্ছে, তাতে কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ আলোচনার উপর বেশ আস্থা হারিয়েছেন।

    শুক্রবার ট্রেজারীর চীফ সেক্রেট্যারী ড্যানী অ্যালেক্সজান্ডার পাবলিক সেক্টরে অবসরের বয়স সীমা বৃদ্ধি ও পেনশনের জন্য মাসিক বেতন থেকে ‘অবদান’ কাটা বৃদ্ধির পরিকল্পনা ঘোষণা করে ‘ইনস্টিটিউট ফর পলিসি রিসার্চ’-এ বক্তৃতা করার পর ইউনিয়ন নেতার মধ্যে ধারণা তৈরী হয় যে, আলোচনা যাই হোক না কেনো, সরকার তার সিদ্ধান্ত পাল্টাবে না।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন