• ষোল বছরের অনশন ভাঙ্গলেন মণিপুরের ইরম শর্মিলাঃ এবার সরাসরি লড়বেন রাজনীতির মাঠে
    irom-sharmila.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - লণ্ডন, ১০ অগাষ্ট ২০১৬ বুধবারঃ ভারতীয় সামরিক বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিলের দাবীতে প্রায় ষোল বছর ধরে পালন করে আসা অনশন ভেঙ্গেছেন মণিপুরের ইরম শর্মিলা চানু। তবে তাঁর দাবী এখনও বহাল রয়েছে, যা অর্জনে এবার রাজনীতিতে প্রবেশের ঘোষণা দিয়েছেন 'মণিপুরের লৌহমানবী' নামে পরিচিত এ-মানবাধিকার কর্মী।

    ২০০০ সালের ২রা নভেম্বর আসাম রাইফেল্‌স মণিপুরে 'মালম গণহত্যা' ঘটালে তার প্রতিবাদে ৪ঠা নভেম্বর থেকে অনশন শুরু করেন ইরম। তখন থেকে তাঁর প্রধান দাবী হচ্ছে বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিল করা হোক। মানবাধিকার সংস্থাগুলো এ-আইনটিকে 'ড্রেকৌনিয়ান' বলে আখ্যায়িত করেন, যা অত্যন্ত নির্মম আইন বোঝাতে ব্যবহৃত হয়।

    সামরিক বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইনের আওতায় সেনাবাহনী বিনা আটকাদেশে সন্দেহজনক যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারে; যেকোনো ব্যক্তি বা বাহনের গতিবিধিতে বাধা দিতে পারে; যেকোনো শান্তিভঙ্গকারীকে প্রয়োজনে গুলি করে হত্যা করতে পারে। তবে এ-আইন ব্যবহারের কারণে সামরিক সদস্যদেরকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে না। ১৯৫৮ সাল থেকে মণিপুরকে এ-আইনের আওতায় উপদ্রুত এলাকা বলে গণ্য করা হচ্ছে।

    ইরম শর্মিলার সুদীর্ঘ অনশনেও বিতর্কিত আইনটি বাতিল হয়নি এখনও পর্যন্ত। তবে, খাদ্য গ্রহণে তাঁর অস্বীকৃতি এবং সরকার কর্তৃক নাকে নল ঢুকিয়ে জোর করে খাওয়ানোর সংবাদ সারা বিশ্বে বহুলভাবে প্রচারিত হওয়ায় এই আইনটির ব্যাপারে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সচেতনতা তৈরী হয়েছে। শর্মিলা এবার তাঁর পূরণে অর্জনে রাজনৈতিক ক্ষমতা অর্জন করতে চান। গতকাল তিনি বলেছেন, মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী হয়ে তিনি এ-আইন বাতিল করবেন।

    তবে শর্মিলার এ-অনশন-ভঙ্গ অনেক মানবাধিকারকর্মী পছন্দ করেননি। অনেকেই এটিকে তাঁর রাজনৈতিক উচ্চাকাঙ্খার প্রকাশ বলে সন্দেহ করছেন। জবাবে শর্মিলার বলছেন, "আমার সিদ্ধান্তের বিরোধীরা চায় আমি শহীদ হই"। তিনি আরও বলেন, "পরিবর্তনের একটি মূর্ত প্রকাশ হতে হবে আমাকে, তাই আমি আমার কৌশল বদলেছি"।

    ত্যাগ ও নিষ্ঠা দিয়ে ইরম শর্মিলা মণিপুরবাসীর হৃদয়ে স্থান পেয়েছেন। তবে, কেবলমাত্র একটি বিশেষ আইন বাতিলের 'একক লক্ষ্য' সামনে রেখে নির্বাচনে দাঁড়ালে ভৌটাররা তাতে কতোটা ইতিবাচকভাবে সাড়া দেবেন তা জানতে আগামী নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন