• 'সমগ্র ইসরায়েল' ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায়ঃ ইরানী সামরিক কমাণ্ডার
    iran_brig_gen_yahya_rahim_safavi.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৩ নভেম্বর ২০১১, বুধবারঃ ইসরায়েলী রাষ্ট্রের সমগ্র ভূমি ইরানের দূর-পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে বলে দাবী করেছেন ইরানের উচ্চ-পদস্থ সামরিক কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া রহিম সাফাভি। তিনি ইরানের ইসলামী বিপ্লবের নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনীর সামরিক পরামর্শক হিসেবে কাজ করেন।

    ইয়াহিয়া আরও বলেন, 'ক্ষেপণাস্ত্র-হামলা মোকাবেলায় বিভিন্ন দেশে যেমন তুরষ্ক, অধিকৃত প্যালেস্টাইন, কাতার, কুয়েত, ইরাক, বাহরাইন ও আরব আমিরাতের ভূমিতে ইসরায়েল যে 'ক্ষেপণাস্ত্র-বিধ্বংসী প্রতিরক্ষা-ব্যবস্থা' স্থাপন করেছে তা অপ্রতুল'। তিনি ইসরায়েলকে এই মর্মে সতর্ক করে দেন যে, 'ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র সংখ্যায় এতো বেশি যে, তাদের প্রতিরক্ষা-ব্যবস্থা আমাদের সকল ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকাতে পারবে না'।

    উল্লেখ্যঃ সম্প্রতি ইসরায়েলের উচ্চপদস্থ নেতৃবৃন্দ খোলাখুলিভাবে ইরানে সামরিক হামলার ব্যাপারে কথা বলতে শুরু করেছেন। গতকাল প্রতিরক্ষামন্ত্রী এহুদ বারাক বলেছেন, 'ইরানকে সামলানোর সময় এসেছে'। এ-মাসের শুরুতে প্রেসিডেন্ট শিমোন প্যারেস 'ইরানে সামরিক হামলার সম্ভবনা বাড়ছে' বলে হুমকি জারি করেছেন।

    গত ১২ই নভেম্বর ইরানের একটি সামরিক ঘাঁটিতে বড়ো ধরণের একটি বিষ্ফোরণে দেশটির ক্ষেপণাস্ত্র প্রকল্পের একজন উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা-সহ অন্ততঃ ৩৬ জন সেনার মৃত্যুকে ইসরায়েলের গুপ্তচরদের দ্বারা সংঘটিত নাশকতা বলে প্রচারিত হয়েছে। ইরান অবশ্য একে স্রেফ একটি দুর্ঘটনা বলে দাবী করে আসছে। গত বছরও অনুরূপ এক 'দুর্ঘটনায়' ইরানে ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল।

    উদ্ভুত পরিস্থিতে পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থনপুষ্ট ইসরায়েল একপাক্ষিকভাবেই ইরানে হামলা চালাতে পারে বলে অনুমান করছেন অনেক সামরিক বিশ্লেষক। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা ও নীতিনির্ধারকরা ইরানে হামলার ব্যাপারে নেতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেছেন। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী লিওন প্যানেটা গত ১১ নভেম্বর বলেছেন, 'ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক আক্রমণ অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির জন্ম দিতে পারে'।

     

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন