• হেফাজতে ইসলামের সাথে আলোচনা চায় গণজাগরণ মঞ্চঃ চট্টগ্রামে সমাবেশ হলো না
    bd_hefajote_islam_press_conference.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ১৩ মার্চ ২০১৩, বুধবারঃ  বাংলাদেশে হেফাজতে ইসলাম নামের একটি ইসলামবাদী সংগঠনের 'প্রতিরোধ' হুমকির মুখে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হতে পারলো না গণজাগরণ মঞ্চের পূর্বনির্ধারিত সমাবেশ। গতকাল সমাবেশটি অনির্ধারিত সময়ের জন্য পিছিয়ে দিয়ে মঞ্চের নেতারা হেফাজতে ইসলামকে আলোচনায় বসার আহবান জানিয়েছেন।

    বাংলাদেশে চলমান শাহবাগ-আন্দোলনের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা 'গণজাগরণ মঞ্চ' আজ চট্টগ্রামে সমাবেশ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছিলো গত সপ্তায়। শাহবাগের আন্দোলকদেরকে নাস্তিক-মুরতাদ আখ্যা দিয়ে হেফাজতে ইসলাম সে-সমাবেশ প্রতিরোধ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে। জবাবে আন্দোলকরাও সমাবেশ সংঘটনে তাঁদের দৃঢ় সংকল্পের কথা জানান।

    কিন্তু হেফাজত তাঁদের 'যেকোনো মূল্যে প্রতিরোধ' কর্মসূচির অংশ হিসেবে গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশের জন্য নির্ধারিত স্থান ও সময়ে নিজেরাও সমাবেশের ঘোষণা দেন। এছাড়াও তাঁরা চট্টগ্রামে আজ হরতাল ডাকেন। এ-অবস্থায় স্থানীয় প্রসাশন ১৪৪ ধারা জারি করে নিশ্চিত করে যেনো সমাবেশ কিংবা পাল্টা-সমাবেশ না ঘটতে পারে।

    উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এটি স্পষ্ট যে, গণজাগরণ মঞ্চের পক্ষে আইন না ভেঙ্গে সমাবেশ করা সম্ভব নয় কিংবা করলেও তাতে সহিংসতা ও প্রাণহানির সমূহ সম্ভবনা রয়েছে। ফলে দৃশ্যতঃ সমাবেশ বাতিল করে বা পিছিয়ে না দিয়ে উপায় ছিলো না। এক্ষেত্রে স্পষ্টতঃ নির্ণায়কের ভূমিকা পালন করেছে প্রশাসন তথা সরকার - গণজাগরণ মঞ্চ বা হেফাজতে ইসলাম নয়।

    'গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশ হচ্ছে না', এ-সংবাদ পেয়ে হেফাজতে ইসলাম তাঁদের হরতাল ও অন্যান্য 'প্রতিরোধ' কর্মসূচি বাতিল করেছে। ১৪৪ ধারা জারি করায় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সংগঠনটির চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক মইনুদ্দিন রুহি।

    দু'পক্ষই সমাবেশ বাতিল করলেও সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি রাখে পুলিস। ভোর ৮টার দিকে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে কয়েকটি হাতে তৈরি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটেছে যাতে একজন আহত হয়েছেন বলে সংবাদ পরিবেশন করেছে স্থানীয় সংবাদ-মাধ্যম বিডিনিউজ২৪.কম।

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন