• ‘আমার ছেলে থাকলে দেখতে ট্রেভনের মতো হতো’, বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা
    Obama-on-Trayvon-killing.jpg

    ইউকেবেঙ্গলি - ২৪ মার্চ ২০১২, শনিবারঃ  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের অন্তর্গত স্যানফৌর্ডে স্বেচ্ছা-নিয়োজিত এক মহল্লা-প্রহরী গত ২৫ ফেব্রুয়ারী ১৭ বছর বয়েসী কৃষ্ণ-তরুণ ট্রেভন মার্টিনকে গুলি করে মারার পরও পুলিসের হাতে গ্রেফারিত না হওয়ার প্রতিবাদে দেশ-জুড়ে যে-আন্দোলন চলছে, তার প্রেক্ষাপটে আজ প্রথম বারের মতো প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মন্তব্য করতে গিয়ে নিহতের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে ঘটনার তদন্তের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

    উল্লেখ্য, হত্যাকারী জর্জ জিমারম্যান দাবী করছেন যে, তাঁর নজরদারী এলাকায় প্রবেশ করা ট্রেভনকে সন্দেহের কারণে ‘আত্মরক্ষার্থে’ গুলি করেন, যা ফ্লোরিডার ‘স্ট্যাণ্ড ইউর গ্রাউণ্ড’ আইনে কোনো অপরাধ নয়। কিন্তু তদন্তের স্বার্থেও কেনো হত্যাকারীকে কেনো গ্রেফতার করা হচ্ছে না, তার প্রতিবাদে নিউইয়র্ক-সহ বিভিন্ন স্থানে চলছে প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ।

    নিহতের মা ‘আমার ছেলের মৃত্যু প্রাপ্য ছিলো না’ যুক্তরাষ্ট্রীয় তদন্ত সংস্থা আইএফবিকে যুক্ত হবার আহবান জানিয়েছেন।

    এহেন প্রেক্ষাপটে গতকাল, ওয়াশিংটনের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ ওয়াইট হাউসের রৌজ গার্ডেনে ভিন্ন একটি প্রসঙ্গে উপস্থিত সাংবাদিকদের মধ্যে একজনের জিজ্ঞাসিত ট্রেভন-হত্যা বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বারাক ওবামা বলেন, ‘এটি অবশ্যই একটি ট্র্যাজেডী। ট্রেভনের মা-বাবা কীসে মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন, তা আমি শুধু কল্পনাই করতে পারছি।’

    ট্রেভন-হত্যা নিয়ে সমগ্র আমেরিকার ‘অন্তরে জিজ্ঞাসা’ তৈরীর বিষয় রয়েছে মন্তব্য করে ওবামা বলেন, আমার একটি ছেলে থাকলে, সে দেখতে ট্রেভনের মতো হতো এবং তার মা-বাবার এই প্রত্যাশা ঠিকই আছে যে, আমেরিকান হিসেবে আমাদের সবাই ঘটনাটিকে তার যোগ্য গুরুত্ব সহকারে নেবো।’

    তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট ওবামা বলেন, ‘আমি যখন ছেলেটির সম্পর্কে ভাবি, তখন আমি আমার নিজের বাচ্চাদের কথা ভাবি এবং আমি মনে করি, আমেরিকার প্রতিটি মা-বাবা বুঝতে পারবেন কেনো ঘটনাটির প্রতিটি দিক তদন্ত করা পরম কর্তব্য।’

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন