• নারীই পারে আফগানিস্তানকে রক্ষা করতেঃ শাহালা আতা
    চিত্রা পাল

    বৈষম্যের জ্বলন্ত পাহাড় অতিক্রম করার কঠিন সংগ্রাম করছে আফগানিস্তানের নারীরা। ভবিষ্যতে একদিন সকল বৈষম্যের সমাধান হবে। সুইডেনের দৈনিক পত্রিকা ডিএন এর সাথে এক সাক্ষাতকারে সম্প্রতি এমনই আশাবাদী বক্তব্য প্রকাশ করেছেন আফগান প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থী শাহালা আতা। ২০ অগাস্টের নির্বাচনে নির্বাচনে ৩৯ জন পুরুষ আর ২জন নারী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রেসিডেন্ট পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী দুই-জন নারীর মধ্যে শাহালা আতা একজন। অপরজন ফারজান ফানহা।

    ৪১ বছর বয়েসী  শাহালা আতা পেশায় একজন চিকিৎসক।  হাজার প্রতিকূলতার মধ্যেও গত চার বছর ধরে নারীর সম-অধিকারের লক্ষ্যে কঠোর সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। নির্বাচনে প্রচারণাতে তিনি নিজেকে নারী-অধিকারের প্রবক্তা হিসাবে তুলে ধরতে চেয়েছেন। শাহালা আতার নির্বাচনী শ্লৌগান হচ্ছে, 'নারীরা হচ্ছে সমাজের অর্ধাংশ'। অসীম সাহসে ভর করে হেলমন্দের মত তালেবান অধ্যুষিত এলাকাতে এবার নির্বাচনী প্রচারাভিযান চালিয়েছেন  শাহালা।

    শাহালা আতা একজন দৃঢ় প্রত্যয়ী নারী, তিনি পরিবর্তনের সম্ভাবনায় আশাবাদী।  শাহালা মনে করেন আফগান জনতার নৈতিক সমর্থন তার সাথে আছে এবং শাসন-কার্যে নারীর অংশগ্রহনের মধ্য দিয়েই কেবল মাত্র বিধ্বস্ত আফগানিস্তান রক্ষা পেতে পারে। একজন নারী প্রেসিডেন্ট জঙ্গী-আগ্রাসন থেকে দেশেকে কি ভাবে রক্ষা করতে পারে জানতে চাওয়া হলে  শাহালা বলেন, 'আমার প্রথম কাজ হবে তালেবানদের সাথে দ্বি-পাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমে অস্ত্র-সমর্পন করানো ও দেশ গড়ার কাজে তাদেরকে পুণর্বাসন করা।   শাহালা আতা মনে করেন বোমা আর রকেট হামলা চালিয়ে তালেবান দমন করা যাবে না, বরং এর ফলে তালেবানদের প্রতিশোধের শক্তি বেড়ে যাবে।

    সুইডেন থেকে
    ২০ অগাস্ট ২০০৯

    Pictures

আপনার মন্তব্য

এই ঘরে যা লিখবেন তা গোপন রাখা হবে।
আপনি নিবন্ধিত সদস্য হলে আপনার ব্যবহারকারী পাতায় গিয়ে এই সেটিং বদল করতে পারবেন