সংবেদন

মানুষে-মানুষে সংঘাতের থিসিস

মাসুদ রানা

মানুষে-মানুষে সংঘাতের মৌলিক রূপ হচ্ছে কাড়াকাড়ি, যাকে অনুসরণ করে আসে ধমকাধমকি, ধাওয়াধাওয়ি, মারামারি এবং শেষ পর্যন্ত খুনোখুনি। লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, শিশুদের মধ্যেও কাড়াকাড়ি থেকে মারামারি লাগে। এই সংঘাতের মূলে আছে ‘স্কার্স’। ...»

বিহারী-নিধনের প্রতিকারঃ আত্মধিক্কারে নয় আত্মমর্য্যাদায়

মাসুদ রানা

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার মীরপুরে বিহারী বংশোদ্ভূত ১০ ব্যক্তিকে পুড়িয়ে হত্যা করার ঘটনার আমি তীব্র প্রতিবাদ করি। এই হত্যাকাণ্ডে ভাগ্যাহতের জাতিগত পরিচয় একটি প্রসঙ্গ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

হত্যার পেছেনে জাতি-বিদ্বেষ থাকা অসম্ভব নয়, কিন্তু প্রকৃতই তা কি-না তা আমি নিশ্চিত নই। তবে বিষয়টি সন্দেহ আকারে আসুক বা না আসুক, একমাত্র সংখ্যালঘু হওয়ার কারণেই হত্যার মৌটিভ হিসেবে জাতিগত বিদ্বেষকে বিবেচনায় রেখে তদন্ত করা দরকার। ...»

বাঙালীত্বঃ ক্ষমতার গঠনে আছে প্রয়োগে নেই

মাসুদ রানা

কেউ পছন্দ করুন বা না-করুন, টাওয়ার হ্যামলেট্‌স হচ্ছে ব্রিটেইনের বাঙালীর রাজধানী। এটি শুধু বাঙালী-বসতির ঘনত্বের কারণে নয়, এটি বাঙালীর রাজনৈতিক ক্ষমতা গঠনের কারণেও।

টাওয়ার হ্যামলেট্‌সে প্রত্যক্ষ ভৌটে এক্সিকিউটিভ ক্ষমতাধর মেয়র নির্বাচন বিধি প্রবর্তিত হওয়ার পর, গত ২২শে মে গেলো দ্বিতীয় নির্বাচন। এবার মেয়র নির্বাচন ও কাউন্সিলার নির্বাচন সম্পন্ন হলো একই সাথে।

নানা কারণে, গতবারের চেয়েও এবারের নির্বাচন সারাদেশের বিশেষ মনোযোগ আকর্ষণ করেই অনুষ্ঠিত হয়েছে। ...»

ভবিষ্যত প্রজন্ম নিয়ে জাতির বিবেকের দায়িত্বঃ প্রেক্ষিত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

মোহাম্মদ আলী আকন্দ মামুন

বুদ্ধিজীবী হিসেবে আখ্যাত বিভিন্ন পেশার মানুষ যাঁরা বুদ্ধির চর্চা করেন তাঁদের একটা বড় অংশই হচ্ছে দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ। এ-সকল বুদ্ধিজীবীরা জাতির বিবেক হিসেবেও পরিচিত। ’জাতি’ ও ’বিবেক’ শব্দ দুটি’র ব্যাপ্তি অনেক। জাতির বিবেক হিসেবে চিহ্নিত সমাজের অতি সম্মানিত এবং একইসাথে সামাজিকভাবে সুবিধাপ্রাপ্ত এই গোষ্ঠীর সদস্যদের কে কতোটা ভাবেন দেশ-জাতিকে নিয়ে আর কতোটা ব্যক্তি-স্বার্থ বাস্তবায়নের চিন্তায় ব্যস্ত থাকেন, তা অনেকেরই জানা নেই। তবে জাতীয় স্বার্থে সরকারের সংশ্লিষ্টজনদেরকে এ বিষয়ে সচ ...»

পেশাজীবীদের ‘ইজম’ সমস্যর সমাধান কী?

যায়নুদ্দিন সানী

কিছুদিন আগে বাংলাদেশের রাজশাহীতে চিকিৎসকদের হরতাল পালিত হলো। এ-নিয়ে সমাজের বিভিন্ন অংশে প্রচুর কথা-বার্তা, বাক-বিতণ্ডা হলো। চিকিৎসকরা হরতাল করতে পারেন কি-না; রোগীদেরকে জিম্মি করে দাবী আদায় নৈতিক কি-না ইত্যাদি নিয়ে বেশ বিতর্কও হলো। অবশেষে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ঘোষণা করলেন, আন্দোলন করলে মানব-বন্ধন পর্যন্ত করা যেতে পারে। তবে যে আলোচনা আড়ালে থেকে গেলো, তা হচ্ছে পেশাজীবীদের ‘ইজম’ বা ‘পেশা প্রীতি’ - নিজ পেশার লোকের ওপর আঘাত এলে, একত্রিত হয়ে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়া। মনোভাবটা এমন যে, "দোষ কার তা পরে দেখা যাবে, প্রথমে চাই একটি আপাতঃ সমাধান যে ...»